১৬ই মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
৩০শে জানুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ
৮ই রজব, ১৪৪৪ হিজরি

    সর্বশেষ খবর

    কাতার বিশ্বকাপে কত রেকর্ড গড়লো মেসি

    নিজস্ব প্রতিনিধি : কাতার বিশ্বকাপকে বলা হয় লিওনেল মেসি বিশ্বকাপ । এটা কি লিওনেল মেসির শুধু একটি বিশ্বকাপ জেতা না আরো কিছু।  কাতার বিশ্বকাপই শুধু জয় করেননি মেসি করেছেন বেশ কিছু রেকর্ডও।  আজ জানাবো কাতার বিশ্বকাপে মেসির যত রেকর্ড ভাঙ্গল আর গড়লো।

    কাতার বিশ্বকাপ খেলার মধ্য দিয়ে  লিওনেল মেসি পাঁচবার বিশ্বকাপ খেলার রেকর্ড গড়লেন। অর্থাৎ পাচটি বিশ্বকাপ খেলেছেন লিওনেল মেসি। এর আগে জার্মানির লোথার ম্যাথিউজ, ইতালির জিয়ানলুইজি বুফন, মেক্সিকোর আন্তনিও কারবাহাল, পর্তুগালের ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো, মেক্সিকোর আন্দ্রেয়াস গার্দাদো, গিলার্মো ওচোয়া ও রাফায়েল মার্কেজের সঙ্গে সমান পাঁচটি করে বিশ্বকাপে খেলার রেকর্ডে ভাগ বসান মেসি।

    এর মধ্যদিয়ে নতুন আরেকটি রেকর্ড গড়লেন মেসি সেটি হলো সব চেয়ে কম বয়সে ৫ টি বিশ্বকাপ খেলার কীর্তি গড়েছেন লিওনেল মেসি। ৩৫ বছর বয়সেই এই রেকর্ডটি গড়েছেন তিনি। এত দিন পাঁচটি বিশ্বকাপ খেলা সর্বকনিষ্ঠ খেলোয়াড় ছিলেন বুফন ৩৬ বছর। কাতার বিশ্বকাপ যদি নির্ধারিত সময়ে জুন-জুলাই হতো তাহলে অন্তত আরও ছয় মাস কম নিয়ে এই রেকর্ডের ভাগিদার হতে পারতেন আর্জেন্টাইন অধিনায়ক।

    কাতার বিশ্বকাপ খেলে আরেকটি রেকর্ড গড়লেন মেসি।

    মেসির নামের পাশে বিশ্বকাপে সবচেয়ে বেশি ম্যাচ খেলার রেকর্ডও। বিশ্বকাপের পাঁচ আসরে সব মিলিয়ে মেসি ২৬টি ম্যাচ খেলেছেন। আর জার্মানির লোথার ম্যাথিউজ খেলেছেন ২৫টি ম্যাচ। এর মধ্যদিয়ে বিশ্বকাপে বেশি ম্যাচ খেলার রেকর্ড মেসির কাছে।

    নতুন রেকর্ড গড়লেন আরো একটি বিশ্বকাপে সবচেয়ে বেশি ২ হাজার ৩১৪ মিনিট মাঠে থেকেছেন আর্জেন্টাইন অধিনায়ক। এর আগে ইতালিয়ান কিংবদন্তি পাওলো মালদিনি চারটি বিশ্বকাপে অংশ নিয়ে খেলেছিলেন ২ হাজার ২১৭ মিনিট।

    অধিনায়ক হিসেবে সবচেয়ে বেশি ম্যাচ খেলেছেন মেসি। ফাইনালে মাঠে নেমেই অধিনায়ক হিসেবে বিশ্বকাপে সবচেয়ে বেশি ম্যাচ খেলার ইতিহাস গড়েন তিনি। ১৯টি ম্যাচে আর্জেন্টিনাকে নেতৃত্ব দিয়েছেন। এর আগে রাফা মার্কেজ সর্বোচ্চ ১৭টি ম্যাচে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন মেক্সিকোকে। এটাও এখন মেসির দখলে।

    বিশ্বকাপে দেশের হয়ে গোল করে রেকর্ড গড়লেন এ তারকা। বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে গোল করে গ্যাব্রিয়েল বাতিস্তুতাকে পেছনে ফেলে আর্জেন্টিনার হয়ে সবচেয়ে বেশি গোল করার রেকর্ড গড়েছিলেন লিওনেল মেসি। বাতিস্তুতার গোল ছিল দশটি। মেসির গোল ১৩টি। যার মধ্যে কাতার বিশ্বকাপেই করেছেন সাত গোল।

    বিশ্বকাপে সবচেয়ে বেশি জয় ফ্রান্সের বিপক্ষে টাইব্রেকারে জিতে প্রথমবারের মতো শিরোপা জিতেন লিওনেল মেসি। এই জয়ের মধ্য দিয়ে বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ জয়ের রেকর্ড স্পর্শ করেছেন তিনি। ১৭টি জয় নিয়ে এতদিন শীর্ষে ছিলেন জার্মানির মিরোস্লাভ ক্লোসা। সেখানে ভাগ বসালেন লিওনেল মেসি।

    অ্যাসিস্ট গোলেও শীর্ষে মেসি।কমাত্র খেলোয়াড় হিসেবে বিশ্বকাপের পাঁচটি ভিন্ন আসরে অ্যাসিস্ট করেছেন মেসি। আরেক আর্জেন্টাইন কিংবদন্তি দিয়াগো ম্যারাডোনা, ব্রাজিলিয়ান কিংবদন্তি পেলে, পোল্যান্ডের জেগোস লাতো ও ইংল্যান্ডের ডেভিড বেকহ্যাম তিন আসরে অ্যাসিস্ট করেছেন।

    বিশ্বকাপে গোলে সরাসরি অবদান।বিশ্বকাপে সবচেয়ে বেশি গোলে সরাসরি অবদান রেখেছেন মেসি। মোট ২১টি গোলে (১৩ গোল, ৮ অ্যাসিস্ট) অবদান তার। এতদিন মোট ১৯ গোলে অবদান রেখে শীর্ষে ছিলেন জার্মানির মিরাস্লাভ ক্লোসা, জার্ড ম্যুলার ও ব্রাজিলের রোনালদো।

    পেলের পাশে মেসি নকআউট পর্বে সবচেয়ে বেশি অ্যাসিস্টের রেকর্ডে পেলেকে ছুঁয়েছেন মেসি। দুজনেরই নকআউট পর্বে ৬টি করে অ্যাসিস্ট আছে। সেখানে ভাগ বসালেন কাতার বিশ্বকাপ খেলে।

    ম্যারাডোনার পাশে মেসি বিশ্বকাপে সবচেয়ে বেশি অ্যাসিস্ট করার রেকর্ড ছিল কিংবদন্তি দিয়াগো ম্যারাডোনার। কাতার বিশ্বকাপে তার সঙ্গে এই রেকর্ড ভাগাভাগি করে নিয়েছেন। দুজনেরই অ্যাসিস্ট সংখ্যা ৮টি।

    প্রথম এবং শেষ গোলে দীর্ঘ ব্যবধান করেও নতুন রেকর্ড এ তারকার।২০০৬ সালের ১৬ জুন সার্বিয়ার বিপক্ষে বিশ্বকাপে প্রথম গোল করেছিলেন লিওনেল মেসি। পাক্কা ১৬ বছর ১৮৪ দিন আগে বিশ্বকাপে নিজের প্রথম গোল করেছিলেন তিনি। রবিবার ফ্রান্সের বিপক্ষে ফাইনালেও করেন দুটি গোল। সময়ের হিসেবে যা বিশ্বকাপের দীর্ঘতম। মেসির পরেই আছেন পর্তুগিজ তারকা ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো। তার বিশ্বকাপে প্রথম ও শেষ গোলের মাঝে ব্যবধান ১৬ বছর ১৬০ দিন।

    বিশ্বকাপে সবচেয়ে বেশি ম্যাচসেরা বিশ্বকাপে সবচেয়ে বেশি ১১টি ম্যাচে সেরার পুরস্কার উঠেছে মেসির হাতে। কাতারেই এবার পাঁচবার ম্যাচসেরার পুরস্কার জিতেছেন, যা এক আসরে রেকর্ডও বটে। ৭ ম্যাচে সেরা হয়ে দুইয়ে আছেন পর্তুগিজ তারকা ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো।

    দুটি গোল্ডেন বল বিশ্বকাপের ইতিহাসে প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে দুটি গোল্ডেন বল জয়ের রেকর্ড গড়ছেন লিওনেল মেসি। ১৯৮২ সাল থেকে টুর্নামেন্ট সেরার পুরস্কার গোল্ডেন বল চালু করা হয়। এরপর কেউই দুবার গোল্ডেন বল জেতেননি। ২০১৪ সালে দেশকে বিশ্বকাপ জিতাতে না পারলেও প্রতিযোগিতার সেরা ফুটবলার নির্বাচিত হয়েছিলেন মেসি। এবার বিশ্বকাপ ট্রফির সঙ্গে গোল্ডেন বলও পেলেন ফুটবল জাদুকর।

    ২০২২ সালে কাতার বিশ্বকাপকে লিওনেল মেসির বিশ্বকাপ বললে কী খুব বড় ভুল হবে? এটা যে মেসির রেকর্ডে ভরা বিশ্বকাপ।

    আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
    আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে পাশে থাকুন

    Latest Posts

    spot_imgspot_img

    আলোচিত খবর