২২শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
৫ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ
১৪ই রজব, ১৪৪৪ হিজরি

    সর্বশেষ খবর

    গোল্ডেন বল মেসির, সেরা তরুণ খেলোয়ার এনজো, গোল্ডেন গ্লাভস মার্টিনেজ আর গোল্ডেন বুট জিতলেন এমবাপ্পে

    কাতার বিশ্বকাপের সর্বোচ্চ ৮ গোল করে বিশ্বকাপের গোল্ডেন বুট নিজের করে নিলেও গোল্ডেন বল গিয়েছে আর্জেন্টিনাইন সুপারস্টার লিওনেল মেসির হাতে। বিশ্বের প্রথম ফুটবলার হিসেবে দুটো গোল্ডেন বল জয়ের কীর্তি গড়লেন মেসি। এর আগে ২০১৪ বিশ্বকাপেও গোল্ডেন বল জিতেছেন মেসি। কিন্তু সেবার থাকতে হয়েছিল  পরাজিতের দলে।

    কাতার বিশ্বকাপে দুর্দান্ত পারফরম্যান্সের স্বীকৃতিস্বরূপ ‘গোল্ডেন বল’ জিতেছেন সাতবারের ব্যালন ডি’অরজয়ী এই ফুটবলার।২০১৪ সালে ব্রাজিল বিশ্বকাপের ফাইনালে জার্মানির কাছে হেরে স্বপ্ন ভাঙলেও টুর্নামেন্টসেরা খেলোয়াড় হয়েছিলেন মেসি।৮ বছর পর ২০২২ সালে এসে বিশ্বকাপটাই জিতে নিলেন তিনি। সে সঙ্গে আবারও জিতলেন গোল্ডেন বল।

    এ নিয়ে ইতিহাসে তৃতীয়বার আর্জেন্টিনার কোনো খেলোয়াড় গোল্ডেন বল জিতলেন। ১৯৮২ সালে এই পুরস্কার চালু হওয়ার পর ১৯৮৬ বিশ্বকাপজয়ের নায়ক ডিয়েগো ম্যারাডোনা জিতেছিলেন এই পুরস্কার।

    বিশ্বকাপ গ্রুপপর্ব শেষেই গোল্ডেন বল জেতার লড়াই জমিয়ে তুলেছিলেন লিওনেল মেসি ও কিলিয়ান এমবাপ্পে। সমানতালে লড়াই করছিলেন দুজনে। কখনো এমবাপ্পে এগিয়ে গেলে কখনো এগিয়ে যাচ্ছিলেন মেসি। ফাইনালের আগে উভয়েরই ছিল ৫টি। তবে এসিস্ট বিবেচনায় এগিয়ে ছিলেন মেসিই। মেসির ৩ এসিস্টের বিপরীতে দুটো এসিস্ট ছিল এমবাপ্পের।

    তবে ফাইনালে এসে শেষ মুহূর্তে সব সমীকরণ পাল্টে যায় এমবাপ্পের হ্যাটট্রিকে। তবে জোড়া গোল করে ফের রেসে ফেরেন মেসি। আর দলকে সম্মুখ থেকে নেতৃত্ব দিয়ে শিরোপা জেতানোয় শেষ পর্যন্ত গোল্ডেন বল জিতে নেন বিশ্বের সেরা এই ফুটবলার। ৭ গোলের পাশাপাশি ৩ এসিস্ট করেন তিনি। তবে সর্বোচ্চ ৮ গোল করে গোল্ডেন বুট জিতেছেন এমবাপ্পে।

    আর সেরা তরুণ খেলোয়াড়ের পুরষ্কার উঠেছে এনজো ফার্নান্দেজের হাতে। বয়স মাত্র ২১ তবে মাঠের পারফরম্যান্স বলে দেয় যেন দীর্ঘদিন ধরেই আর্জেন্টিনার মধ্যমাঠের দায়িত্ব পালন করে আসছেন এনজো ফার্নান্দেজ। মধ্যমাঠের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে দলকে নিজেদের সেরা খেলাটা খেলতে সাহায্য করেছেন এনজো। তার আলো ছড়ানো শুরু মেক্সিকোর বিপক্ষে বাঁচামরার লড়াইয়ের ম্যাচে। দুর্দান্ত এক গোল করে দলের জয় নিশ্চিত করেন। এরপর থেকে সবকটি ম্যাচেই আর্জেন্টিনার মধ্যমাঠ সামলানোর দায়িত্ব তার কাঁধে। এরপর গোল না পেলেও মধ্যমাঠে নিজের দায়িত্ব ঠিকই পালন করেছেন তিনি।

    মেসির পাশাপাশি স্বদেশী ও বিশ্বকাপ জয়ের অন্যতম কারিগর গোলকিপার এমিলিয়ানো মার্টিনেজ জিতেন গোল্ডেন গ্লাভস। তার সাথে ফ্রান্সের গোলকিপার লরিস সমানভাবে লড়াই করলেও রোমাঞ্চ ফাইনালে এসে এগিয়ে যান এমিলিয়ানো। ফাইনালে পুরো ম্যাচে দুর্দান্ত কিছু সেভসহ টাইব্রেকারে কোম্যানের শট ফিরিয়ে দেন তিনি। নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে কোয়ার্টার ফাইনালেও পেনাল্টি শ্যুটআউটে দুই শট ঠেকিয়ে নায়ক বনে গিয়েছিলেন এমিলিয়ানো মার্টিনেজ। আর্জেন্টিনার এমিলিয়ানো মার্টিনেজ টুর্নামেন্টের সেরা গোলরক্ষকের পুরস্কার ‘গোল্ডেন গ্লাভস’ জিতেছেন।

    মাহফুজা ১৯-১২

     

     

    আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
    আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে পাশে থাকুন

    Latest Posts

    spot_imgspot_img

    আলোচিত খবর