২২শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
৫ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ
১৪ই রজব, ১৪৪৪ হিজরি

    সর্বশেষ খবর

    তৃণমূল মানুষের দোরগোড়ায় চোখের মেডিকেয়ার পরিষেবা পৌঁছে দেওয়ার চেষ্টা করছি- প্রধানমন্ত্রী

    সবার জন্য বিশ্বমানের স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতে কাজ করে যাচ্ছে সরকার জানালেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

    বুধবার সকালে গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে দেশের ১৩ জেলার ৪৫ উপজেলায় কমিউনিটি ভিশন সেন্টার উদ্বোধনকালে এ কথা বলেন তিনি।

    রাজধানীর শেরে বাংলা নগরে অবস্থিত জাতীয় চক্ষু বিজ্ঞান ইনস্টিটিউটে আয়োজিত মূল অনুষ্ঠানের পাশাপাশি ভোলার চরফ্যাশন, বরগুনার আমতলী, চট্টগ্রামের বাঁশখালী ও কক্সবাজারের পেকুয়ার কমিউনিটি ভিশন সেন্টারে আয়োজিত অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি যুক্ত হন প্রধানমন্ত্রী। পরে তিনি উপকারভোগীদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন।

    প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমি এর আগে দুই ধাপে ৯০টি কমিউনিটি ভিশন সেন্টার উদ্বোধন করেছি। সব মানুষকে বিনামূল্যে আধুনিক ও উন্নত চক্ষু চিকিৎসার আওতায় আনার জন্য পর্যায়ক্রমে সারাদেশে কমিউনিটি ভিশন সেন্টার নির্মাণের পরিকল্পনা রয়েছে সরকারের। আমরা তৃণমূল মানুষের দোরগোড়ায় চোখের মেডিকেয়ার পরিষেবা পৌঁছে দেওয়ার চেষ্টা করছি। কমিউনিটি ভিশন সেন্টার থেকে চিকিৎসা নিয়ে অনেকেই অন্ধ হওয়া থেকে রক্ষা পেয়েছেন।

    শেখ হাসিনা বলেন, ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালকে ৫ হাজার শয্যায় উন্নীত করার পরিকল্পনা রয়েছে।

    শেখ হাসিনা বলেন, ২০০৯ সালে দেশের হাসপাতালগুলোতে বেড ছিল ৩৮ হাজার, এটি ৬৭ হাজারে উন্নীত করা হয়েছে। চক্ষু ইনস্টিটিউটসহ প্রতিটি ইনস্টিটিউট আওয়ামী লীগের সময়ে প্রতিষ্ঠিত। শিশু হাসপাতাল প্রতিটি বিভাগে হওয়া উচিত। শিশু চিকিৎসার ক্ষেত্রে ট্যাক্স তুলে নেওয়া হয়েছে। বেসরকারি পর্যায়ে হাসপাতালের যন্ত্রপাতি কেনায় ট্যাক্স কমিয়ে দিয়েছি।

    তিনি বলেন, আমরা চিকিৎসা সেবার সঙ্গে গবেষণাও জোরদার করেছি। দেশের বড় বড় জেলাগুলোতে মেডিকেল করেছি। বিভাগগুলোতে মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় করে দেব, সেভাবে ব্যবস্থা নিচ্ছি। মেডিকেল কলেজগুলোতে ছাত্রছাত্রীর সংখ্যা বাড়ছে।

    শেখ হাসিনা বলেন, উপজেলায় কমিউনিটি ভিশন সেন্টার স্থাপনে অনেকেই আমাকে পরামর্শ দিয়েছেন। এক্ষেত্রে ডা. মোদাচ্ছের আলী, ডা. দ্বীন মোহাম্মদের কথা বিশেষভাবে বলতে চাই। এর সঙ্গে জড়িত সব ডাক্তারকে আমি ধন্যবাদ জানাই।

    আমরা সফলভাবে করোনা মোকাবিলা করেছি উল্লেখ করে সরকারপ্রধান বলেন, সময়মতো সঠিক পদক্ষেপ নেওয়ায় করোনায় মৃত্যু কম হয়েছে। আমরা সাহস করে টিকা এনেছিলাম। বিনামূল্যে মানুষকে টিকা দিয়েছি।

    নতুন চালু হওয়া কমিউনিটি ভিশন সেন্টারের মধ্যে বরিশাল বিভাগে ২০টি, চট্টগ্রাম বিভাগে ২০টি, রাজশাহী বিভাগে চারটি ও খুলনা বিভাগে একটি রয়েছে।

    অনুষ্ঠানে কমিউনিটি ভিশন সেন্টারের কার্যক্রম সম্পর্কে সংক্ষিপ্ত বর্ণনা করেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডা. জাহিদ মালেক, স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব ড. আনোয়ার হোসেন হাওলাদার, শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) উপাচার্য অধ্যাপক ডা. মো. শারফুদ্দিন, জাতীয় চক্ষুবিজ্ঞান ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালের পরিচালক অধ্যাপক ডা. গোলাম মোস্তফা আহমেদ।

    কমিউনিটি ভিশন সেন্টার থেকে এ পর্যন্ত ১৩ লাখ ৩১ হাজার ৫৭৭ জন চোখের চিকিৎসা নিয়েছেন। এছাড়া ২ লাখ ১০ হাজার ৮৬৮ জনকে বিনামূল্যে চশমা দেওয়া হয়েছে। অনুষ্ঠানে কমিউনিটি আইভিশন সেন্টারের পক্ষ থেকে চোখের চিকিৎসা সংক্রান্ত একটি প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শন করা হয়।

    মাহফুজা ১৮-১

     

    আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
    আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে পাশে থাকুন

    Latest Posts

    spot_imgspot_img

    আলোচিত খবর