২২শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
৫ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ
১৪ই রজব, ১৪৪৪ হিজরি

    সর্বশেষ খবর

    শনিবার থেকে শীতের তীব্রতা কমতে পারে ; যশোরে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস

    দিন ও রাতের তাপমাত্রার ব্যবধান কমে গিয়ে দুদিন ধরে প্রায় সারাদেশেই তীব্র শীত অনুভূত হচ্ছে। শনিবার  থেকে কিছুটা উন্নতি হতে পারে বলে জানিয়েছেন আবহাওয়াবিদরা।

    বৃহস্পতিবার সকালে আবহাওয়াবিদ মো. আব্দুল হামিদ মিয়া বলেন, দিন ও রাতের তাপমাত্রার ব্যবধানজনিত কারণে যে শীতের তীব্রতা এটা আরও দু-একদিন থাকতে পারে।

    সকাল ৯টা থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী- এখন পর্যন্ত দেশে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়েছে যশোরে। এখন পর্যন্ত সবগুলো স্টেশনের তাপমাত্রার তথ্য এসে পৌঁছায়নি বলেও জানান হামিদ মিয়া।

    কানাডার সাসকাচুয়ান বিশ্ববিদ্যালয়ের আবহাওয়া ও জলবায়ুবিষয়ক গবেষক মোস্তফা কামাল পলাশ জানান, কুয়াশা অবস্থা শুক্রবারের পরে অনেক কমে যাবে। কিন্তু ঠান্ডা বাতাস বাংলাদেশের ওপর দিয়ে প্রবাহিত হবে ১০ জানুয়ারি পর্যন্ত।

    উত্তর দিক থেকে বয়ে যাওয়া ঠান্ডা বাতাসের কারণে শীত জেঁকে বসেছে বলে জানিয়েছেন আবহাওয়াবিদরা।

    বুধবার সারাদিন ঢাকায় রোদ ওঠেনি। বৃহস্পতিবারও সকাল থেকে কুয়াশাচ্ছন্ন ঢাকার আকাশ। বেলা সাড়ে ৯টায় এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত দেখা মেলেনি সূর্যের।

    আজ বৃহস্পতিবার সকালে ঢাকায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৪ দশমিক ১ ডিগ্রি থেকে কমে হয়েছে ১২ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

    বুধবার সন্ধ্যা ৬টা থেকে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে জানানো হয়েছে, আংশিক মেঘলা আকাশসহ সারাদেশের আবহাওয়া শুষ্ক থাকতে পারে। মধ্যরাত থেকে সকাল পর্যন্ত সারাদেশে মাঝারি থেকে ঘন কুয়াশা পড়তে পারে এবং এটি দেশের কোথাও কোথাও দুপুর পর্যন্ত অব্যাহত থাকতে পারে।

    এসময়ে সারাদেশে রাতের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে এবং দিনের তাপমাত্রা সামান্য বাড়তে পারে। দিন ও রাতের তাপমাত্রা পার্থক্য কমার কারণে দেশের উত্তর, উত্তর-পশ্চিমাঞ্চল এবং মধ্যাঞ্চলে মাঝারি থেকে তীব্র শীতের অনুভূতি অব্যাহত থাকতে পারে বলেও পূর্বাভাসে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

    বুধবার দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিলো মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস। সর্বোচ্চ ছিল টেকনাফে ২৮.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। শ্রীমঙ্গল ছাড়া দেশের অন্যান্য নিম্ন তাপমাত্রার অঞ্চলগুলোতে তাপমাত্রা ১২ ডিগ্রি সেলসিয়াসের কাছাকাছি ছিলো। গতকাল তেঁতুলিয়ায় নিম্ন তাপমাত্রা ছিলো ১১.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস, রাজারহাটে ছিলো ১১.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস, ঈশ্বরদীতে ছিলো ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াস, রাজশাহীতে ছিলো ১০.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস, বদলগাছীতে ছিলো ১২.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস, চুয়াডাঙ্গায় ছিলো ১২ ডিগ্রি সেলসিয়াস

    ঠান্ডা বাতাস, ঘন কুয়াশা আর কনকনে শীতে জবুথবু দিনাজপুরের মানুষ। খুব প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে কেউ বের হচ্ছে না। সকাল ৬টায় জেলার তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং বাতাসের আদ্রতা ৯৩ শতাংশ।

    বৃহস্পতিবার সকালে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন দিনাজপুর আবহাওয়া অধিদপ্তরের কর্মকর্তা আসাদুজ্জামান।গতকাল একই সময় তাপমাত্রা ছিলো ১২.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। বাতাসের আদ্রতা ছিলো ৯৭ শতাংশ।

    চাঁপাইনবাবগঞ্জে বেশ কয়েকদিন ধরেই শীতের দাপটে খেটে খাওয়া দিনমজুরসহ নিম্ন আয়ের মানুষ চরম বিপাকে পড়েছেন। বিশেষ করে নদী ভাঙনে ক্ষতিগ্রস্ত চরাঞ্চলের বাসিন্দারা শীতে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছেন।

    আবহাওয়া অফিস সুত্রে জানা গেছে, চাঁপাইনবাবগঞ্জে কয়েকদিন ধরে তাপমাত্রা সর্বনিম্ন ১২ আর সর্বোচ্চ ১৮ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে উঠানামা করছে। আজ সকালে তাপমাত্রা ছিল ১২ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

    মাহফুজা ৫-১

     

    আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
    আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে পাশে থাকুন

    Latest Posts

    spot_imgspot_img

    আলোচিত খবর