৩১শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
১৫ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
৯ই মহর্‌রম, ১৪৪৬ হিজরি

    সর্বশেষ খবর

    পোল্যান্ডকে ২-০ গোলে হারিয়ে গ্রুপ চ্যাপিয়ন হয়েই দ্বিতীয় রাউন্ডে উঠলো আর্জেন্টিনা

    মেক্সিকো ও পোল্যান্ড দুই দলকেই ২-০ গোলের ব্যবধানে হারিয়ে গ্রুপ চ্যাপিয়ন হয়েই দ্বিতীয় রাউন্ডে উঠলো আর্জেন্টিনা । যেখানে তাদের প্রতিপক্ষ অস্ট্রেলিয়া।রোববার অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে দ্বিতীয় রাউন্ডের ম্যাচ খেলবে আর্জেন্টিনা। দলের হয়ে একটি করে গোল করেছেন ম্যাক অ্যালিস্টার ও জুলিয়ান আলভারেস।

    তিন ম্যাচে দুই জয় ও এক পরাজয়ে ছয় পয়েন্ট আর্জেন্টিনার। পোল্যান্ড ও ম্যাক্সিকোর পয়েন্ট সমান ৪। তবে গোল ব্যবধানে এগিয়ে থাকায় পোল্যান্ড গ্রুপের রানার্সআপ হয়ে নিশ্চিত করেছে শেষ ষেলো। ফ্রান্সের বিপক্ষে প্রি কোয়ার্টার রাউন্ডে ম্যাচ খেলবে পোল্যান্ড।

    পোল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচটি যে সহজ হবে না সেটা আগেই অনুমেয় ছিল। ম্যাচের যত যময় গেছে ততই তা হাড়ে হাড়ে টের পেয়েছে মেসিরা।

    চার পরিবর্তন নিয়ে পোল্যান্ডের বিপক্ষে এদিন খেলতে নামে আর্জেন্টিনা। শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক খেলতে থাকে আলবিসেলেস্তারা৷ ম্যাচের ১১ মিনিটে ডান পাশ দিয়ে মেসির জোরালো শট রুখে দেন পোলিশ গোলরক্ষক সিজনি।

    দ্বিতীয় রাউন্ডে যেতে হলে জিততেই হবে। এমন সমীকরণ মাথায় নিয়ে মেসির দল আক্রমণে যাবে এটাই স্বাভাবিক। শুরু থেকেই তাদের খেলায় আক্রমণের মিছিল। মেসি ডি বক্সের ভেতরে ঢুকে একাধিক শট নিয়েছেন। ডি মারিয়া বল নিয়ে ভেতরে ঢোকার চেষ্টা করেছেন একাধিকবার। কিন্তু পোলিশ দূর্গ এখনও ভাঙতে পারেনি দুইবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা।

    ১৯ মিনিটে আবারো আর্জেন্টিনার আক্রমণ। এবার আকুনার শট চলে যায় গোলবারের উপর দিয়ে৷ মাঝমাঠের দখল নিয়ে আর্জেন্টিনা একের পর এক আক্রমণ করতে থাকে।

    ৩৪ নিনিটে ডি মারিয়ার কর্নার সোজা গোলমুখে ঢুকতে গেলে আবারো কর্নারের মাধ্যমে গোলবার রক্ষা করেন সিজনি। ৩৭ নিনিটে আবারো পোল্যান্ডের ত্রাতার ভূমিকায় সিজনি। এবার হুলিয়ান আলভারেজের শট রুখে দেন তিনি।

    তবে এতেই ঘটে বিপত্তি। এর পরের মিনিটেই সিজনি ডি বক্সের ভেতর ফাউল করে বসেন মেসিকে। রেফারি ভিএআর এর মাধ্যমে পেনাল্টির দেন।

    কিন্তু স্পট কিক থেকে গোল করতে ব্যর্থ হন মেসি। তার বুলেট গতির শট রুখে দেন পোলিশ এই গোলরক্ষক। ২০০২ সালের পর এক বিশ্বকাপে দুই পেনাল্টি সেভ করা একমাত্র গোলরক্ষক হলেন সিজনি৷ বিরতির আগে আর কোন গোল না হলে গোলশূন্য ড্র তে থেকেই বিরতিতে যায় দুই দল।

    প্রথমার্ধের বাকি সময়ে গোল পায়নি কোনো দল। আর্জেন্টিনা ম্যাচের ৬৫ শতাংশ বল দখল করেও গোল করতে পারেনি। একাধিক গোলের সুযোগ তৈরি করলেও তা রুখে দিয়েছে পোল্যান্ড। অন্যদিকে ড্র করলেই যথেষ্ট এমন ম্যাচে পোল্যান্ডকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। আক্রমণে কোনো প্রাণ নেই। গোল করার তেমন চেষ্টাও তারা করেননি। নিষ্প্রভ রয়েছেন দলের সেরা তারকা লেওয়ানডোস্কি।

    দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই আর্জেন্টিনা পেয়ে যায় কাঙ্ক্ষিত গোল। ৪৬ মিনিটে মলিনার ডান পাশ থেকে বাড়ানো ক্রসে এলেক্সিস ম্যাক এলিস্টারের গোলে ১-০ গোলে এগিয়ে যায় আলবিসেলেস্তারা।

    ৫২ নিনিটে গোলের সুযোগ পেয়েছিল পোল্যান্ড। কিন্তু ফ্রি কিক হেতে গিলিকের হেড চলে যায় গোলবারের সামান্য বাইরে দিয়ে। ৬৮ মিনিটে আবারো এগিয়ে যায় আর্জেন্টিনা।

    এবার এনজো ফার্নান্দেজের ক্রস থেকে বল পেয়ে আর্জেন্টিনাকে ২-০ গোলের ব্যবধানে এগিয়ে দেন ম্যান সিটি তারকা হুলিয়ান আলভারেজ। একাদশে সুযোগ পেয়েই দলের জয়ে অবদান রাখলেন তিনি৷

    ৭৪ মিনিটে আবারো সুযোগ পায় আর্জেন্টিনা। আবারো হুলিয়ান আলভারেজ শট করলেও তা চলে যায় গোলবারের উপর দিয়ে৷ ৮৭ মিনিটে গোলের অন্যতম সহজ সুযোগটি মিস করেন বদলি হিসেবে নামা লাউতারো মার্টিনেজ৷ সিজনিকে একা পেয়েও গোল দিতে ব্যর্থ হন তিনি৷ বল মারেন গোলবারের অনেক বাইরে দিয়ে৷

    শেষ দিকে আর্জেন্টিনা আরো গোলের সুযোগ তৈরি করলেও তা দেখা পায়নি জালের। ২-০ ব্যবধানের জয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়েই দ্বিতীয় রাউন্ডে ওঠে আর্জেন্টিনা।

    বিশ্বকাপে এর আগে দুবার পোল্যান্ডের মুখোমুখি হয়েছে আর্জেন্টিনা। ১৯৭৪ বিশ্বকাপে স্টুর্টগার্টে প্রথম রাউন্ডের ম্যাচে পোল্যান্ডের কাছে ৩–২ গোলে হেরেছিল লাতিন আমেরিকার দলটি। চার বছর পর ঘরের মাঠে অনুষ্ঠিত বিশ্বকাপে গ্রুপ পর্বের দ্বিতীয় রাউন্ডে সে হারের প্রতিশোধ নেয় আর্জেন্টিনা। কেম্পেসের জোড়া গোলে ২–০ ব্যবধানে জিতেছিল আর্জেন্টিনা। নয় মুখোমুখিতে আর্জেন্টিনার জয় পাঁচটিতে, পোলান্ডের দুটিতে। ড্র হয়েছে দুই ম্যাচ।

    আর্জেন্টিনা একাদশ (৪-২-৩-১)–এমিলিয়ানো, মোলিনা, রোমেরো, ওটামেন্ডি, আকুনা, দি পল, এনজো, ম্যাক অ্যালিস্টার, মেসি, আলভারেস, দি মারিয়া।

    পোল্যান্ডের একাদশ (৪-৪-২)—-সেজেসনি, কামিল গ্লিক, জ্যাকব কিভিওর, বার্তোস বেরেসজিনস্কি, গ্রজেগর্জ ক্রাইচোয়াক, ক্রিস্টিয়ান বিয়েলিক, পিওতর জিলিনস্কি, প্রজেমিস্লাও, ফ্রাঙ্কোস্কি, ম্যাটি ক্যাশ, রবার্ট লেওয়ানডোস্কি ও কারল সুয়েডেস্কি।

    মাহফুজা ১-১২

     

     

    আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
    আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে পাশে থাকুন

    Latest Posts

    spot_imgspot_img

    আলোচিত খবর