৩০শে চৈত্র, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
১৩ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
৪ঠা শাওয়াল, ১৪৪৫ হিজরি

    সর্বশেষ খবর

    তুরস্ক ও সিরিয়ায় ভূমিকম্পে নিহত ১৫ হাজার ৩৮৩ জন; ভবনের ধ্বংসস্তূপের নিচে আটকা পড়ে আছেন অনেকে

    তুরস্ক ও সিরিয়ায় ভূমিকম্পে মৃতের সংখ্যা ১৫ হাজার ছাড়ালো। বৃহস্পতিবার সকাল পর্যন্ত সরকারি তথ্য অনুযায়ী, তুরস্কে ১২ হাজার ৩৯১ এবং সিরিয়ায় ২ হাজার ৯৯২ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। সব মিলিয়ে এখন ১৫ হাজার ৩৮৩ জনে মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ।

    এদিকে আনুষ্ঠানিকভাবে এখন পর্যন্ত ১৫ হাজার জনের মৃত্যুর কথা বলা হলেও, আশঙ্কা করা হচ্ছে এ সংখ্যাটি বাড়বে। এখনো হাজার হাজার মানুষ আটকা পড়ে আছেন ধসে পড়া ভবনের ধ্বংসস্তূপের নিচে।

    শুধুমাত্র হাতেয় প্রদেশেই মারা  গেছেন ৩ হাজার ৩০০ জন। এ অঞ্চলের বেশিরভাগ ভবন ধসে পড়েছে।তুরস্কের হাতেয় প্রদেশ ভূমিকম্পে সবচেয়ে ক্ষতি হয়েছে।  বুধবার সেই অঞ্চলে যান তার্কিস প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান। তিনি জানান, ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ অনেক বেশি এবং এত বড় দুর্যোগ সামাল দেওয়ার মতো প্রস্তুতি নেয়া অসম্ভব। কিন্তু তবুও সবাইকে উদ্ধার করা হবে বলে প্রতিশ্রতি তিনি দেন।

    অনেক তুর্কি নাগরিক বলেন, ধ্বংসস্তূপের নিচে চাপা পড়া জীবিত ব্যক্তিরা সাহায্যের জন্য চিৎকার করে কান্না করছেন। কিন্তু প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম ও অভিজ্ঞ উদ্ধারকারীর অভাবে উদ্ধার করা সম্ভব হচ্ছে না তাদের।

    সিরিয়ার কেবল ইদলিব প্রদেশেই মারা গেছেন এক হাজার ৫০০ জন । এমন অবস্থায় সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল-আসাদের এক উপদেষ্টা বলেন, আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞাগুলো সিরিয়াকে প্রয়োজনীয় সহায়তা পেতে বাধা দিচ্ছে।‘আমাদের পর্যাপ্ত বুলডোজার ও ক্রেন নেই। তাছাড়া ইউরোপীয় ও মার্কিন নিষেধাজ্ঞায় উদ্ধারকাজ ও সহায়তা পাওয়ার সুযোগ ব্যাহত হচ্ছে।’

    এদিকে, জাতিসংঘের সহয়তা কার্যক্রম ভূমিকম্পে তুরস্ক-সিরিয়ার সীমান্তবর্তী রাস্তাগুলোর ক্ষতি হওয়ায় বাধাগ্রস্ত হচ্ছে । প্রতিকূল পরিস্থিতিতে সিরিয়ায় সহায়তা সরবরাহ বন্ধ রাখতে বাধ্য হয় সংস্থাটি।

    জাতিসংঘের একজন জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা  জানান, খুব শিগগির সিরিয়ায় সহায়তা সরবরাহ চালু হতে পারে। তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত কাভুসোগলু বলেন সিরিয়ায় আন্তর্জাতিক সহায়তা পৌঁছানোর সুবিধার্থে আরও দুটি সীমান্ত গেট খুলে দেয়া হবে।

    সিরিয়া সরকারের অনুরোধের পরিপ্রেক্ষিতে সহায়তা বাবদ ৩০ লাখ ৫০ হাজার ইউরো দেওয়া হবে এবং ওই অর্থ অবশ্যই সরকারি ও বিদ্রোহী-নিয়ন্ত্রিত এলাকায় পৌঁছে দিতে হবে বলে নিশ্চিত করেছে ইউরোপী ইউনিয়ন।

    বিশেষজ্ঞরা জানান, ভূমিকম্প এর তিন দিন পর ধ্বংসস্তূপের নিচে এখনো যারা আটকে আছেন তাদের জীবিত উদ্ধারের সম্ভাবনাও কমে আসছে।

    যুক্তরাজ্যের নটিংহ্যাম ট্রেন্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাকৃতিক দুর্যোগ বিশেষজ্ঞ স্টেভেন গোডবে বলেছেন, ‘দুর্যোগের প্রথম ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্তদের বেঁচে থাকার সম্ভাবনা থাকে ৭৪ শতাংশ। ৭২ ঘণ্টা পর এটি নেমে আসে ২২ শতাংশে। আর পঞ্চম দিনে কোনো আহত বা ক্ষতিগ্রস্তের বেঁচে থাকার সম্ভাবনা ৬ শতাংশে চলে আসে।

    সোমবার ভোর ৪টা ১৭ মিনিটে  ভূমিকম্পটি দেশ দুটিতে আঘাত হানে এবং রিখটার স্কেলে এর মাত্রা ছিল ৭ দশমিক ৮। মার্কিন ভূতাত্ত্বিক জরিপের তথ্য অনুযায়ী, ভূমিকম্পটি তুরস্কের গাজিয়ানটেপ প্রদেশের নুরদাগি এলাকা থেকে ২৩ কিলোমিটার পূর্বে আঘাত হানে। এর গভীরতা ছিল ২৪ দশমিক ১ কিলোমিটার। ৪০ সেকেন্ড ধরে চলা এ ভূমিকম্পের কম্পন লেবানন ও সাইপ্রাসেও পৌঁছায়।

    মাহফুজা ৯-২

     

    আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
    আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে পাশে থাকুন

    Latest Posts

    spot_imgspot_img

    আলোচিত খবর