২২শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
৫ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ
১৪ই রজব, ১৪৪৪ হিজরি

    সর্বশেষ খবর

    চীনে করোনাভাইরাসের ৮০ শতাংশ মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন

    আগামী দুই বা তিন মাসের মধ্যে চীনে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব থেকে ঘুরে দাঁড়ানোর সম্ভাবনা কম। কারণ  দেশের ৮০ শতাংশ মানুষ এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। শনিবার চীনের সরকারি এক প্রখ্যাত বিজ্ঞানী দেশটিতে করোনার চলমান প্রাদুর্ভাব নিয়ে এমন মন্তব্য করেন।

    স্থানীয় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম উইবোতে দেওয়া পোস্টে চীনের রোগ নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ কেন্দ্রের প্রধান মহামারী বিশেষজ্ঞ উ জুনিউ বলেছেন, চলমান চন্দ্র নববর্ষের ছুটির সময় জনগণের গণ-চলাচল মহামারীর আরও বিস্তার ঘটাতে পারে। এই সময় কিছু এলাকায় সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তবে অদূর ভবিষ্যতে করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের সম্ভাবনা নেই।

    কোটি কোটি চীনা নাগরিক চন্দ্র নববর্ষের ছুটিতে পরিবারের সাথে পুনর্মিলিত হওয়ার জন্য দেশজুড়ে ভ্রমণ করছেন। সম্প্রতি কোভিড বিধি-নিষেধ শিথিল করার পর দেশটিতে করোনার ব্যাপক প্রাদুর্ভাব শুরু হয়েছে। আর নববর্ষ উদযাপন ঘিরে দেশটির প্রত্যন্ত গ্রামীণ এলাকায় নতুন প্রাদুর্ভাব ছড়িয়ে পড়ার শঙ্কা তৈরি হয়েছে।

    বৃহস্পতিবার দেশটির জাতীয় স্বাস্থ্য কমিশনের একজন কর্মকর্তা বলেছেন, চীনে জ্বরের রোগীদের সেবাদানে নিয়োজিত ক্লিনিক, জরুরি সেবা কক্ষ এবং গুরুতর রোগীদের সেবাদান কেন্দ্রগুলোতে কোভিড রোগীদের উপচে পড়া ভিড় শুরু হয়েছে।

    গত ডিসেম্বরে জিরো কোভিড নীতি বাতিলের ঘোষণা দেয়ার পর থেকে করোনাভাইরাসের ভয়াবহ প্রাদুর্ভাবের মুখোমুখি হয়েছে চীন। এরপরও চীন করোনা পরিস্থিতির দৈনিক পরিসংখ্যান প্রকাশ করা বন্ধ করে দিয়েছে কিন্তু দেশটির বড় বড় হাসপাতালগুলোতে কোভিড রোগীর উপচে পড়া ভীড় দেখা যাচ্ছে।

    সরকারী তথ্য অনুযায়ী প্রায় এক মাসে (১২ জানুয়ারি পর্যন্ত) কোভিডে আক্রান্ত প্রায় ৬০ হাজার জন রোগী হাসপাতালে মারা গেছেন। অবশ্য বাস্তব সংখ্যা এরচেয়ে অনেক বেশি বলে দাবি করেছেন বিশেষজ্ঞরা। কারণ শ্বাসযন্ত্রে সংক্রমণ হয়ে গেলে মারা গেলে কেবল সেটাকেই কোভিডে মৃত্যু বলে স্বীকৃতি দেয় চীন।

    চীনের গত ১১ জানুয়ারি পর্যন্ত প্রায় ৯০ কোটি মানুষ করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছেন বলে জানিয়েছে দেশটির পেকিং বিশ্ববিদ্যালয়। বেইজিংয়ের বিশ্ববিদ্যালয়টি গবেষণার ভিত্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে্।

    দেশটির কোন কোন প্রদেশে করোনার সংক্রমণ বেশি, তার একটি তুলনামূলক চিত্র তুলে ধরেছে পেকিং বিশ্ববিদ্যালয়। এতে বলা হয়েছে, গানসু প্রদেশের মানুষ সবচেয়ে বেশি করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন। সেখানে সংক্রমণের হার ৯১ শতাংশ। এ ছাড়া ইউনান প্রদেশে ৮৪ ও কিনঘাই প্রদেশে ৮০ শতাংশ মানুষ করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন।

    মাহফুজা ২১-১

    আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
    আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে পাশে থাকুন

    Latest Posts

    spot_imgspot_img

    আলোচিত খবর