১৬ই মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
৩০শে জানুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ
৮ই রজব, ১৪৪৪ হিজরি

    সর্বশেষ খবর

    আওয়ামী লীগের গণতন্ত্র হলো লুট, হত্যা ও টাকা পাচার করার গণতন্ত্র -মির্জা ফখরুল

    বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ‘আওয়ামী লীগের গণতন্ত্র হলো লুট করা গণতন্ত্র, টাকা পাচার করার গণতন্ত্র, মানুষকে হত্যা করার গণতন্ত্র। শনিবার সকালে ঠাকুরগাঁও বিএনপির কার্যালয়ের সামনে শীতবস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে এ মন্তব্য করেন তিনি।

    উন্নয়নের নামে সরকার জনগণকে বোকা বানাচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব ।

    বিএনপি মহাসচিব বলেন, আজকে বাড়ি থেকে অফিসে হেঁটে আসলাম। আসার পথে দেখলাম রাস্তাঘাটের অবস্থা একেবারে নাজেহাল। রাস্তার সব উঠে গেছে। এটাই হচ্ছে ১৪ বছরের তাদের বাস্তব চিত্র। বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘আওয়ামী লীগ ১৪ বছর ধরে উন্নয়নের নামে মানুষকে বোকা বানাচ্ছে। তারা প্রতারণা করছে। বাস্তবে কোনো উন্নয়ন নেই। উন্নয়ন হয়েছে শুধু সরকারি দলের নেতাদের। এই নেতারা নিজেদের নিয়েই ব্যস্ত। যাদের এক তালা বাসা ছিলো তাদের আজ ১০ তালা বাসা হয়েছে।’

    তিনি আরও বলেন, ‘আমরা কোনো মিটিং করতে চাইলে আওয়ামী লীগ বলে আমরা নাকি নাশকতার পরিকল্পনা করছি। তারা আমাদের মিটিংয়ে বাধা দিচ্ছে অথচ দোষ দিচ্ছেন আমাদের উপর। ১৪ বছরে নাশকতা সন্ত্রাস করে বাংলাদেশটাকে একটা শ্মশানে পরিণত করেছে এই আওয়ামী লীগ।’

    তিনি বলেন, আমরা আমাদের ২৭ দফা প্রস্তাব দিয়েছি। আমরা নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে চাই। তবে আওয়ামী লীগের অধীনে কোনো নির্বাচনে অংশগ্রহণ নয়। কারণ তারা কাওকে ভোট দিতে দেয় না। তাদের কথা হলো, আমার ভোট আমি দেব, তোমার ভোটও আমি দেব। আগামীতে আর এরকম করতে দেওয়া হবে না। শান্তিপূর্ণভাবে এর বিরুদ্ধে কঠোর প্রতিরোধ গড়ে তোলা হবে।

    ফখরুল বলেন, এ সরকার খারাপ এ কথাটা বললে তারা মামলা দিয়ে দেয়। তাদের বিরুদ্ধে কোনো কথা বলা যায় না। যদি কথা বলাই না যায়, তাহলে আমরা দেশকে স্বাধীন করেছিলাম কেন? আমরা গণতন্ত্রের জন্য যুদ্ধ করে দেশকে স্বাধীন করেছি। পাকিস্তান আমাদের সঙ্গে জুলুম করতো আমরা তাদেরকে বলেছি আসসালামু আলাইকুম। অথচ তাদের মতোই শাসন ব্যবস্থা কায়েম করছে এ সরকার। তবে তা আর করতে দেওয়া হবে না।

    তিনি বলেন, হাজী সেলিমের জামিন হয়, ক্যাসিনো সম্রাটের জামিন হয়, ১৭ বছর কারাদণ্ড হওয়ার পর মোফাজ্জল হোসেন মায়া আওয়ামী লীগের বড় নেতা হয়ে ঘুরে বেড়ায়। অথচ সাবেক প্রধানমন্ত্রীর জামিন হয় না।

    তিনি আরও বলেন, জনগণের কোনো মূল্য তাদের কাছে নেই। জোর জবরদখল করে বুকের ওপর তারা বসে আছে। আমরা প্রতিরোধ গড়ে তুলব। আমাদের চেয়ারপারসনকে মুক্ত করে তারেক রহমানকে দেশে ফিরিয়ে আনা হবে। সেই সঙ্গে জনগণের সরকার গঠন করা হবে।

    এসময় জেলা বিএনপির সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা তৈমুর রহমান, জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি ওবায়দুল্লাহ মাসুদ, দপ্তর সম্পাদক মামুনুর রশিদ, অর্থ সম্পাদক শরিফ, জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক মাহবুব হোসেন তুহিন, জেলা সেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি নুরুজ্জামান নুরু, সাধারণ সম্পাদক সোহেল রানাসহ বিএনপির বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

    পরে দুস্থ-অসহায়দের মাঝে শীতবস্ত্র হিসেবে সোয়েটার বিতরণ করা হয়।

    মাহফুজা ২১-১

    আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
    আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে পাশে থাকুন

    Latest Posts

    spot_imgspot_img

    আলোচিত খবর