২২শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
৫ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ
১৪ই রজব, ১৪৪৪ হিজরি

    সর্বশেষ খবর

    গঙ্গা বিলাসের আগামী এক বছরের সব টিকিট বিক্রি হয়ে গেছে

    বিশ্বের সবচেয়ে বড় নদী-বিহারের প্রমোদতরী গঙ্গা বিলাসের আগামী এক বছরের সব টিকিট বিক্রি হয়ে গেছে। প্রমোদতরীটির পরিচালনাকারী সংস্থা এ তথ্য জানিয়েছে। খবরটি জানায় টাইমস নাউ।

    শুক্রবার গঙ্গা বিলাস প্রমোদতরীটি উদ্বোধন করেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এটি ভারতের উত্তর প্রদেশ থেকে যাত্রা শুরু করে বাংলাদেশ হয়ে আসামে যাবে। যাত্রার স্থল থেকে গন্তব্যে পৌঁছাতে সময় লাগবে ৫১ দিন। প্রমোদতরীটি দিয়ে নদী-বিলাস করতে একেকজনের খরচ হবে প্রায় ২০ লাখ রুপি। যা বাংলাদেশের অর্থে ২৫ লাখ টাকারও বেশি। এই উচ্চমূল্য সত্ত্বেও ২০২৪ সালের মার্চ মাস পর্যন্ত গঙ্গা বিলাসের সব টিকিট বিক্রি হয়ে গেছে।

    প্রমোদতরীটির পরিচালক রাজ সিং বলেছেন, ‘এখন ২০২৪ সালের মার্চের পর যদি কেউ ভ্রমণ করত চান তাহলে টিকিট বুক করা সম্ভব।’

    ভারতের কেন্দ্রীয় জাহাজ এবং জলপথ পরিবহন মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, গঙ্গা বিলাসে রয়েছে যাবতীয় আধুনিক সুযোগ-সুবিধা। সুইজারল্যান্ডের ৩২ জন পর্যটক নিয়ে প্রথম যাত্রা শুরু করছে বিশাল এই জাহাজ। পর্যটকরা নদীর সৌন্দর্য উপভোগ করার পাশিাপাশি দেখে নিতে পারবেন দু’ধারে থাকা বেশ কিছু উল্লেখযোগ্য স্থানও।

    এদিকে প্রমোদতরীটি যখন যাত্রা শুরু করবে তখন পর্যটকদের শুধুমাত্র ভারতীয় নিরামিষ এবং অ্যালকোহলবিহীন পানীয় দেওয়া হবে। এছাড়া পর্যটকদের স্থানীয় খাবার ও মৌসুমী শাক-সবজি খাওয়ানো হবে। প্রমোদতরীটিতে কোনো আমিষ এবং অ্যালকোহল থাকবে না বলে জানিয়েছেন রাজ সিং।

    ৬২ মিটার দীর্ঘ এ প্রমোদতরীটি পুরোপুরি ভারতে তৈরি করা হয়েছে। খরচ হয়েছে ৬৮ কোটি রুপি। রাজ সিং বলেছেন, ‘অন্য কোথাও এটি তৈরি করলে যে অর্থ খরচ হতো আমরা ভারতে অর্ধেক অর্থে এটি তৈরি করেছি।’

    ৫১ দিনের যাত্রায় মোট ৩ হাজার ২০০ কিলোমিটার ভ্রমণ করবে প্রমোদতরীটি। ভারতের পাঁচটি রাজ্য ও বাংলাদেশ মিলিয়ে পাড়ি দেবে ২৭টি নদী। এটিতে রয়েছে ১৮টি স্যুট। যেগুলোতে ৩৬ জন পর্যটক থাকতে পারবেন।

    ভারতের অন্যতম প্রাচীন শহর বারাণসী থেকে যাত্রা শুরু করে বাংলাদেশের ভেতর দিয়ে আসামের ডিব্রুগড় পর্যন্ত চলবে এ নৌবিহার। সফরকালে প্রমোদতরীটি নদীপথে ৩ হাজার ২০০ কিলোমিটার পথ পাড়ি দেবে। এতে সময় লাগবে ৫১ দিন।

    যাত্রাপথের বাংলাদেশেই রয়েছে প্রায় ১১০০ কিলোমিটার। এবং এর মধ্যে বাংলাদেশে কাটবে ১৫ দিন। বাংলাদেশে এই নৌবিহারের যাত্রাপথে পড়বে মোংলা বন্দর, সুন্দরবনের কটকা সমুদ্রসৈকত, হারবাড়িয়া, বাগেরহাটের মোড়লগঞ্জ, বরিশাল, মেঘনা ঘাট, নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ, মানিকগঞ্জের আরিচা ঘাট, টাঙ্গাইল, সিরাজগঞ্জ ও কুড়িগ্রামের চিলমারী।

    এই ৫১ দিনের যাত্রায় মোট ৫০টি পর্যটন স্পটে থামবে গঙ্গা বিলাস। যার মধ্যে থাকবে বিশ্বের ঐতিহ্যবাহী স্থান, জাতীয় পার্ক, নদীর ঘাট, বিহারের গুরুত্বপূর্ণ পাটনা শহর, ঝাড়খণ্ডের সাহীবগঞ্জ, কলকাতার ওয়েস্ট বেঙ্গল, বাংলাদেশের ঢাকা এবং আসামের গুয়াহাটি।

    মাহফুজা ১৪-০১

     

    আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
    আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে পাশে থাকুন

    Latest Posts

    spot_imgspot_img

    আলোচিত খবর