২২শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
৫ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ
১৪ই রজব, ১৪৪৪ হিজরি

    সর্বশেষ খবর

    স্ত্রীর বিরুদ্ধে আরজে কিবরিয়ার সাধারণ ডায়েরী

    আলোচিত ডেস্ক : যে মানুষটি সব সময় মানুষকে উৎসাগ দিয়ে থাকেন। অন্ধকার থেকে আলোর পথ দেখান। হঠাৎ করে তার এমন কি হলো যে স্ত্রী-সন্তানকে নিয়ে কক্সবাজার ‍ঘুরতে গিয়ে  সেই স্ত্রীর বিরুদ্ধে সাধারণ ডায়েরি করতে হলো। বলছিলাম সবার পরিচিত গোলাম কিবরিয়া ওরফে আরজে কিবরিয়ার কথা।

    বৃহস্পতিবর রাতে কিবরিয়া তার ভেরিফায়েড ফেসবুক আইডিতে একটি স্ট্যাটাস দেন সেখানে সানাউদ্দিন লাভলুর কমান্ডের উত্তর কিবরিয়া লিখেন, আমাকে এবার পারতেই হবে লাবলু ভাই । অনেক সেক্রিফাইস করেছি …অনেক । আপনি ছাড়া আর কে বেশি ভালো জানেন। জন্মদাতা মা কেও ঢুকতে দিতে পারিনা আমার বাসায় । সন্তানকেও তাই বলে সেক্রিফাইস ! নোপ । নেভার ! আর কতকাল পাবলিক ইমেজের ক্ষতি হবে ভেবে নিজেকে নিজে ধ্বংস করবো । আমি সব কিছুর জন্য প্রস্তুত আছি । ইনশা আল্লাহ ।

    স্ট্যাটাস ও কমান্ডের সুত্র ধরে অনুসন্ধানে নেমে জানা দীর্ঘদিন ধরে পারিবারিক কলহ চলে আসছিল।  এরই মধ্যে গোলাম কিবরিয়া ওরফে আরজে কিবরিয়া দুইদিন আগে স্ত্রী-সন্তানদের নিয়ে কক্সবাজার বেড়াতে যান । পর্যটন এলাকার হোটেল সাইমনের ১০২ নম্বর কক্ষে ওঠেন। বৃহস্পতিবার দুপুরের দিকে আরজে কিবরিয়ার স্ত্রী রাফিয়া লোরা সন্তানকে মারধর করেন। আরজে কিবরিয়া বাধা দিতে গেলে তাকেও মারধর করেন তার স্ত্রী। পরে ৯৯৯  ফোন করে পুলিশের সহযোগিতা চাওয়া হয়।

    পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তাকে উদ্ধার করে। পরে আরজে কিবরিয়া বাদী হয়ে তার স্ত্রী রাফিয়া লোরার বিরুদ্ধে থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন।

    সায়মন বিচ রিসোর্টের একজন কর্মচারী বলেন, কাল রাতেও সুমিং পুলের পাশে তারা দুইজন বাকবিতণ্ডায় লিপ্ত হয়। রাতে স্ত্রী হোটেল ছাড়তেও চান। বিকেল নাগাদ আরজে কিবরিয়া থানায় গিয়ে জিডি করেন। এরপরই রাত সোয়া সাতটায় কিবরিয়া তার ভেরিফায়েড ফেসবুক আইডিতে একটি স্ট্যাটাস দেন যেখানে লেখা রয়েছে

    ‘প্রিয় পরিচিতজন

    আমার জ্ঞানত আমি কোনো দিন আমার পারিবারিক বিষয় নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়াতে আলোচনা সমালোচনা হয় এমন কোনো বিষয় নিয়ে কথা বলিনি । আমি বলতেও চাই না, যতক্ষণ পর্যন্ত সে আমার স্ত্রী। আমি কম বেশি সোশ্যাল মিডিয়ার নেগেটিভিটি ফেস করা মানুষ। আমি জানি একটা সংবাদ যাচাই-বাছাই না করে অনলাইনে ছাড়া যায়। ঘটনা পুরাই উল্টে দেওয়া যায়। কাউকে নিয়ে পাবিলিকলি বাজে কথা বলার আমি পক্ষে না। আমি জানি আমার চিরশত্রু বলে যদি কেউ থেকে থেকে তো সে প্রথম এবং একমাত্র টার্গেট করবে আমার চরিত্র এবং পাবলিক ইমেজ। আমি সেটাতে বিন্দুমাত্র ভয় পাই না। আমি ক্ষমা করতে ভালোবাসি। আমার সন্তানদের ক্ষতি যেমন আমি কোনো দিন মেনে নিব না, ঠিক একইভাবে আপনাদের এই ভুলভাল নিউজ তাদের ফিউচারের জন্য কোনো ক্ষতি হোক সেটাও আমি চাই না। প্লিজ। আমি কারো প্রতি কোনো অন্যায় করিনি। যারা আমাকে ভালোবাসেন তারা আস্থা রাখুন। দোয়া করবেন।’এর নিচেই

    সানাউল্লাহ লাভলু লেখেন মাথা ঠান্ডা রাখেন কিবরিয়া। ধৈর্য রাখুন। আমি জানি আপনি পারবেন

    আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
    আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে পাশে থাকুন

    Latest Posts

    spot_imgspot_img

    আলোচিত খবর