২২শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
৫ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ
১৪ই রজব, ১৪৪৪ হিজরি

    সর্বশেষ খবর

    গাইাবান্ধা-৫ আসনের উপ-নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে; চলবে বিকেল সাড়ে ৪টা পর্যন্ত

    গাইাবান্ধা-৫ আসনের উপ-নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে। আজ সকাল সাড়ে ৮টা থেকে বিকেল সাড়ে ৪টা পর্যন্ত বিরতিহীনভাবে ভোট চলছে। ভোট নেয়া হচ্ছে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে ।

    তবে জেলায় হাড় কাঁপানো শীত পড়েছে। পড়ছে ঘন কুয়াশা। এ অবস্থায় সকাল থেকে ভোটকেন্দ্রগুলোতে ভোটার উপস্থিতি অনেক কম দেখা গেছে। ফলে দীর্ঘ লাইন ছাড়াই ভোট দেওয়া যাচ্ছে। কিছু কেন্দ্র ফাঁকাও দেখা গেছে।

    ভোট সংশ্লিষ্টরা জানান, রাত থেকেই কনকনে শীত পড়েছ। তাই ভোটাররা আসতে দেরি করছেন।

    ইসির যুগ্ম সচিব এসএম আসাদুজ্জামান জানিয়েছেন, প্রত্যেক কেন্দ্রেই বসানো হয়েছে সিসি ক্যামেরা। রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয়ে ও নির্বাচন কমিশন থেকে সিসি ক্যামেরার ভোট সরাসরি পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। এছাড়া নির্বাচনী এলাকায় আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় র্যাব, বিজিবি, স্ট্রাইকিং ফোর্স, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এবং পুলিশ ও আনসারের সমন্বয়ে মোবাইল টিম কাজ করছে।

    কেন্দ্রেগুলোতে ভোটগ্রহণ কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন ১৪৫ জন প্রিসাইডিং কর্মকর্তা, ৯৫২ জন সহকারী প্রিসাডিং কর্মকর্তা ও ১ হাজার ৯০৪ জন পোলিং কর্মকর্তা।

    গাইবান্ধা-৫ উপনির্বাচনে প্রার্থীরা হলেন- আওয়ামী লীগের প্রার্থী মাহমুদ হাসান রিপন, জাতীয় পার্টির প্রার্থী এএইচএম গোলাম শহীদ রঞ্জু, বিকল্পধারার প্রার্থী অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর আলম, স্বতন্ত্র প্রার্থী সৈয়দ মাহবুবুর রহমান।

    সাঘাটা ও ফুলছড়ি উপজেলা নিয়ে গঠিত এ আসনটিতে তিন লাখ ৩৯ হাজার ৭৪৩ জন ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন।

    গেল  বছরের ১২ অক্টোবর নির্বাচনের দিন ‘ব্যাপক অনিয়মের’ কারণে নির্বাচন কমিশন (ইসি) উপনির্বাচন স্থগিত করে এবং পরে কমিশন ৪ জানুয়ারি ভোটগ্রহণের দিন ধার্য করে।

    ২০২২ সালের ২২ জুলাই গাইবান্ধা-৫ আসনের সংসদ সদস্য ও সংসদের ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বী মিয়ার মৃত্যুর পর ২০২২ সালের ২০ অক্টোবরের মধ্যে সংসদীয় আসনের জন্য নির্বাচন করা সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা হয়ে দাঁড়ায়। সেই অনুযায়ী নির্বাচন ১২ অক্টোবরের জন্য নির্ধারিত হয়েছিল।

    গত ১২ অক্টোবর নির্বাচনের অনিয়ম খতিয়ে দেখতে তিন সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়। কমিটির সুপারিশের পরিপ্রেক্ষিতে একজন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক, পাঁচজন উপ-পরিদর্শক ও নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তাসহ ১৩৩ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয় নির্বাচন কমিশন।

    মাহফুজা ৪-১

     

    আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
    আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে পাশে থাকুন

    Latest Posts

    spot_imgspot_img

    আলোচিত খবর