২২শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
৫ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ
১৪ই রজব, ১৪৪৪ হিজরি

    সর্বশেষ খবর

    আল বায়েত স্টেডিয়ামে দ্বিতীয় সেমিফাইনালে মুখোমুখি হচ্ছে ফ্রান্স আর মরক্কো।

    কাতার বিশ্বকাপের এবারের আসর দেখতে দেখতে শেষ হয়ে আসছে । আজ বিশ্বকাপের দ্বিতীয় সেমিফাইনালে মুখোমুখি হচ্ছে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স আর আফ্রিকার অদম্য মরক্কো। আল বায়েত স্টেডিয়ামে ম্যাচটি শুরু হবে বাংলাদেশ সময় রাত একটায়।

    প্রতিপক্ষের  আক্রমণভাগ, পরিসংখ্যান আর ফর্ম; সব বিবেচনাতেই ফ্রান্সের এই দলটি ভীষণ ভয়ংকর। বর্তমান বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা এবার খেলেছেও চ্যাম্পিয়নের মতো।

    গ্রুপপর্বে তিউনিসিয়ার বিপক্ষে এক ম্যাচে সাইডবেঞ্চ পরীক্ষা করতে গিয়ে হার যদি বাদ দেওয়া যায়, তবে দেখা যাবে এই ফ্রান্সের সামনে দাঁড়াতে পারেনি প্রতিপক্ষরা।

    গ্রুপপর্বে অস্ট্রেলিয়াকে ৪-১ গোলে উড়িয়ে দিয়ে শুরু। এরপর ডেনমার্কের বিপক্ষে ২-১ গোলে জয় ও শেষ ম্যাচে তিউনিসিয়ার কাছে হার।

    শেষ ষোলোতে আবারও দাপুটে জয় ফ্রান্সের, পোল্যান্ডকে হারায় ৩-১’এ। কোয়ার্টার ফাইনালে ইংল্যান্ডের মতো হট ফেবারিটরাও পারেনি। ফ্রান্স জেতে ২-১ ব্যবধানে।

    কিলিয়ান এমবাপে, অলিভার জিরু, অ্যান্তিনিও গ্রিজম্যান, উসমান ডেম্বেলে, ভারানেদের নিয়ে গড়া এই দলটি যেমন ছন্দে আছে; তাদের সামনে মরক্কো পাত্তা পাওয়ার কথাই না!

    জায়ান্ট কিলার দলটি গ্রুপপর্বে বেলজিয়াম-ক্রোয়েশিয়াকে চমকে দিয়ে, শেষ ষোলোতে করে স্পেনবধ। কোয়ার্টার ফাইনালে মরক্কোর সাথে পারেনি ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর পর্তুগাল।

    সবচেয়ে বড় কথা, এবারের বিশ্বকাপে এখন পর্যন্ত কোনো ম্যাচ হারেনি মরক্কো, তাদের জালে বল পাঠাতে পারেনি কোনও প্রতিপক্ষ। চলতি প্রতিযোগিতায় মরক্কো একমাত্র গোল হজম করেছিল কানাডার বিরুদ্ধে। সেই গোলটি ছিল আত্মঘাতী। ওই ম্যাচে ২-১ ব্যবধানে ম্যাচ জেতে মরক্কো।

    ফ্রান্স এর কোচ দিদিয়ের দেশম বলেন, ‘মরক্কো সেমিফাইনালে আছে। আমি পরিবেশের জন্য প্রতিকূল শব্দটি পছন্দ করি না কারণ এটি নেতিবাচক। কিন্তু তাদের দুর্দান্ত সমর্থন রয়েছে, যা তাদের জন্য খুব প্রয়োজনীয়। (মরক্কোন ভক্তরা) খুব শোরগোল করবে এবং আমার কর্মীরা এ বিষয়টি খেলোয়াড়দের অবগত করেছে। এত জোরালো সমর্থন পাওয়া দুর্দান্ত এবং এটি আমাদের গোল করতে দেবে না।’ফরাসি কোচ যোগ করেন, ‘আপনি যখন একটি ম্যাচের জন্য প্রস্তুত হন তখন আপনাকে পরিবেশের জন্য প্রস্তুত হতে হবে- আমরা খেলোয়াড়রা।

    আগের ম্যাচগুলোর মতো এত ম্যাচেও আক্রমণাত্মক ফুটবল খেলবে ফ্রান্স। দেখা যাবে মরক্কোর পাশে বল থাকবে বেশি। কিন্তু পাল্টা আক্রমণে বেশ পটু মরক্কো। বিশেষ করে ডানদিক থেকে হাকিম জিয়াচ এবং বাঁদিক থেকে সোফিয়ান বাফালের মতো দ্রুতগতির ফুটবলার ভয়ংকর হতে পারে ফ্রান্সের জন্য। এ ছাড়া স্ট্রাইকার ইউসেফ এন-নেসিরিও দুর্দান্ত ফর্মে রয়েছেন। ফলে সতর্ক অবস্থায় থাকবেন ফ্রান্সের দুই ব্যাক জুলুস কুন্দে এবং থিও হার্নান্দেজ। মরক্কোর পাল্টা আক্রমণ রুখতে ফরাসি কোচ দিদিয়ের দেশমসহ দুইজনকে দিতে পারেন দায়িত্ব। যদিও ইংল্যান্ডের বিপক্ষে দুজনকে কিছুটা নড়বড়ে মনে হয়েছিল।

    স্পেন এবং পর্তুগালের বিপক্ষে দুর্দান্ত শক্তি প্রদর্শন করেছেন মরক্কোর ফুটবলাররা। বিশেষ করে তাদের গতি ছিল চোখে পড়ার মতো। দল বেঁধে একই সঙ্গে আক্রমণে যাওয়া এবং প্রয়োজনে সমানভাবে রক্ষণভাগ সহায়তা করে তারা। কিন্তু আগের দুই ম্যাচে প্রচুর পরিমাণে শক্তি ব্যয় করেছেন মরক্কোর ফুটবলাররা। ফলে কিছু ফুটবলারের হালকা ইনজুরি রয়েছে। স্পেনের বিপক্ষে নির্ধারিত সময়ে গোল না হওয়ায় অতিরিক্ত ৩০ মিনিট খেলতে হয়েছে মরক্কোর ফুটবলারদের, যা প্রভাব পড়েছিল পর্তুগালের বিপক্ষে দ্বিতীয়ার্ধে। অন্যদিকে নকআউট পর্বে ফ্রান্স জিতেছে নির্ধারিত সময়ের মধ্যেই। ফলে শারীরিকভাবে বেশ ভালো অবস্থানে আছেন ফরাসিরা।

    সেমিফাইনালে ফ্রান্সের বিপক্ষে নামার আগে বিশেষ বিমানে চেপে কাতার এসেছেন মরক্কোর সমর্থকরা। ধারণা করা হচ্ছে, আল বায়েত স্টেডিয়ামের গ্যালারির বেশিরভাগ থাকবে মরক্কোর সমর্থকদের দখলে। এ ছাড়া মুসলিম দেশ হিসেবে আরববিশ্বের সমর্থন পাবে অ্যাটলাস লায়ন্স নামে পরিচিত আফ্রিকার দলটি, যা হতে পারে মরক্কোর জন্য এক্স ফ্যাক্টরস।

    আজ দ্বিতীয় সেমিফাইনালে তাই মূলত লড়াইটা হবে মরক্কোর জমাট রক্ষণের বিপক্ষে ফ্রান্সের দুর্দান্ত আক্রমণভাগের। সে লড়াইয়ে কারা জেতে, সেটিই এখন দেখার!

    মাহফুজা ১৪-১২

     

    আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
    আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে পাশে থাকুন

    Latest Posts

    spot_imgspot_img

    আলোচিত খবর