৩০শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
১৪ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
৮ই মহর্‌রম, ১৪৪৬ হিজরি

    সর্বশেষ খবর

    ঢাকার ভিতরে গাড়ি চলাচল কম; মহাসড়কে দূর পাল্লার যাত্রীবাহী পরিবহন চলাচল বন্ধ

    বিএনপির সমাবেশকে কেন্দ্র করে কমে গেছে ঢাকায় গাড়ি চলাচল।  মোড়ে মোড়ে দীর্ঘসময় অপেক্ষার পরও গাড়ি না পেয়ে হেঁটে গন্তব্যে পৌঁছানোর চেষ্টা করছেন অনেকে৷ বাসের সংকট থাকায় রিকশা, অটোরিকশাসহ অন্য পরিবহনগুলোতেও বাড়তি ভাড়া নেওয়া হচ্ছে।

    শনিবার সকাল থেকেই ঢাকায় গণপরিবহন সংকট দেখা দেয়। ব্যক্তিগত গাড়ি ও অটোরিকশা চললেও অন্যান্য দিনের তুলনায় তা কম।

    রাজধানীর সাইনবোর্ড, মাতুয়াইল, রায়েরবাগ, শনিরআখড়া,  যাত্রাবাড়ী, ধানমন্ডি, মিরপুর এলাকায় এ চিত্র দেখা গেছে।

    সকালে বিভিন্ন গন্তব্যের উদ্দেশ্যে  বাসা থেকে বের হয়েছেন যারা  তাদের পড়তে হয়েছে বিপাকে। বাস না পেয়ে এসব এলাকায় অনেককে ভ্যানে চড়েও গন্তব্যে যেতে দেখা গেছে।

    রায়েরবাগ থেকে চাকরিজীবী মনির হোসেনের বলেন, আধাঘণ্টার বেশি সময় ধরে দাঁড়িয়ে আছি। কিন্তু কোনো বাস পাইনি। আজ যাদের অফিস আছে তাদের তো বিপদে পড়তে হয়েছে।

    শনিরআখড়া থেকে অফিসগামী সুজন জানান, দুই ঘণ্টা দাঁড়িয়ে আছি কিন্তু কোনো বাস পাচ্ছি না। বাস না থাকায় অনেকে অটোরিকশা, মোটরসাইকেল, রিকশায় যাচ্ছে। কিন্তু ভাড়া অনেক বেশি।

    বাইক চালক রবিউল বলেন, বাস না থাকায় আজকে রাস্তায় বাইক চলছে বেশি। অন্যান্য দিন মোড়ে মোড়ে বাইক দেখা গেলেও আজ সংখ্যায় কম। রাস্তার বিভিন্ন পয়েন্টে পুলিশ আমাদের তল্লাশি করছে।

    বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন সমিতির মহাসচিব খন্দকার এনায়েত উল্যাহ বলেন, রাজধানী ঢাকায় বাস বন্ধের কোনো সিদ্ধান্ত নেই। বাস মালিকরা হয়তো আতঙ্কের কারণে গাড়ি কম চালাচ্ছেন। যাত্রী না থাকায় দূরপাল্লার বাস বন্ধ থাকতে পারে।

    নারায়ণগঞ্জ বাস-মিনিবাস মালিক সমিতির ব্যবস্থাপনা পরিচালক আইয়ুব খান বলেন, বিএনপির সমাবেশ ঘিরে নাশকতা ও ভাঙচুর হতে পারে এমন আশঙ্কায় পরিবহন মালিকদের সিদ্ধান্তের কারণে বাস চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে।

    সকাল থেকেই ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের নারায়ণগঞ্জ অংশে দূরপাল্লার যানবাহন চলাচল বন্ধ রয়েছে। পাশাপাশি আঞ্চলিক যানবাহনগুলো মহাসড়কে কম চলাচল করতে দেখা গেছে। এর ফলে জরুরি কাজে রাস্তায় বের হওয়া লোকজন ভোগান্তিতে পড়েন।

    কাঁচপুর হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কাশেম বলেন, সকাল থেকেই পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে। যাত্রী কম থাকায় হয়তো যানবাহন কম রয়েছে।

    এ বিষয়ে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ওসি মশিউর রহমান বলেন, সকাল থেকে সড়কে গাড়ির চাপ কম। বিকেলের দিকে হয়তো চাপ বাড়তে পারে।

    তিনি আরও বলেন, আমরা কাউকে কোথাও যেতে বাধা দিচ্ছি না। সন্দেহ হলে আমরা তাকে তল্লাশি করে ছেড়ে দিচ্ছি। এ পর্যন্ত আমরা তল্লাশি করে সন্দেহভাজন ছয়জনকে আটক করেছি্।

    গাজীপুরের ঢাকা-ময়মনসিংহ ও ঢাকা টাঙ্গাইল মহাসড়কে দূর পাল্লার যাত্রীবাহী পরিবহন চলাচল বন্ধ রয়েছে। এছাড়া আঞ্চলিক রুটে চলাচলকারী গাড়িও বন্ধ রয়েছে। ফলে চরম ভোগান্তি নিয়ে আটো রিকশা ও সিএনজি চালিত অটোরিকশায় কয়েকগুণ বেশি ভাড়া দিয়ে যাতায়াত করতে হচ্ছে সাধারণ মানুষকে।

    শনিবার সকালে গাজীপুর চান্দনা চৌরাস্তা, বাসন, বোটবাজার, কড্ডা, নাওজোর, কোনাবাড়ি বিভিন্ন এলাকায় ঘুরে এমন চিত্রই দেখা গেছে।

    মাহফুজা ১০-১২

     

     

     

    আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
    আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে পাশে থাকুন

    Latest Posts

    spot_imgspot_img

    আলোচিত খবর