২১শে আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
৬ই অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
১০ই রবিউল আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরি

    সর্বশেষ খবর

    গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে শ্রীলঙ্কার কাছে হারলো ভারত

    এশিয়া কাপে শ্রীলঙ্কার শুরুটা হয়েছিল বাজে ভাবে। শুরু হয়েছিল আফগানিস্তানের কাছে হার দিয়ে । অনেকে সেখানেই তাদের শেষ ধরে নিয়েছিল । কিন্তু এরপর গ্রুপপর্বে বাংলাদেশকে হারিয়ে সুপার ফোর নিশ্চিত করে তারা। সুপার ফোরের প্রথম ম্যাচে আফগানিস্তানকে উড়িয়ে দেয় দ্য লান্সরা।

    বাংলাদেশ-আফগানিস্তানের পর এবার সিংহের থাবা ভারতীয় শিবিরে। সুপার ফোরে টানা দুই জয়ে মূলত ফাইনালে এক পা দিয়ে রেখেছে শ্রীলঙ্কা। ভয়-ডরহীন ক্রিকেটে ধরা দেয় এমন সাফল্য।

    এদিকে পর পর দুই হারে ভারতের বিদায় এক প্রকার নিশ্চিত হয়ে গেছে। তাদের ফাইনালের ভাগ্য ঝুলে গেছে সুঁতোয়। আজ বুধবার (০৭ সেপ্টেম্বর) পাকিস্তান তাদের দ্বিতীয় ম্যাচে আফগানিস্তানকে হারালেই পাকিস্তান-শ্রীলঙ্কা ফাইনাল নিশ্চিত। আরে হেরে গেলে মুখোমুখি হতে হবে জটিল সমীকরণের। কেননা তখন ৩ দলেরই দুই ম্যাচ করে জেতার সম্ভাবনা থাকবে।

    প্রথমে ব্যাটিং করে ভারত শ্রীলঙ্কাকে টার্গেট দেয় ১৭৪ রানে। ১৭৪ রানের লক্ষ্য খেলতে নেমে কুশল-নিসানকা ঝড়ে পাওয়ার প্লে থেকে  ৫৭ রান তোলে শ্রীলঙ্কা। ৩৭ বলে ৫২ রানে নিসানকার আউটে ৯৭ রানে ভাঙে ওপেনিং জুটি। উড়ন্ত সূচনা থামিয়ে ভারতীয় শিবিরে আশার আলো দেখান যুজবেন্দ্র চাহাল। নিসানকার পর একই ওভারে শূন্যরানে ফেরান চারিথ আসালাঙ্কাকে। এরপর লঙ্কান শিবিরে আক্রমণ করেন অশ্বিন। তিনি ফেরান দানুস্কা গুনাথিলাকাকে। কিন্তু ক্রিজে কুশল থাকায় তবুও অস্বস্তি ছিল ভারতীয় শিবিরে। এক ওভার পরে এসে তাকেও ফিরিয়ে স্বস্তি এনে দেন চাহাল।

    সেট ব্যাটসম্যানরা ফিরলেও থামেনি লঙ্কানদের রানের চাকা। ভানুকা রাজাপাকসে-দাসুন শানাকা ৩৪ বলে ৬৪ রানের জুটি গড়ে দলকে জিতিয়ে মাঠ ছাড়েন। শেষ ২ ওভারে প্রয়োজন ছিল ২১ রানের। কিন্তু প্রথম ৩ ওভারে ১৬ রান দেওয়া ভুবেনশ্বর যেন এলোমেলো হয়ে যান। দুই ওয়াইড আর দুই চারে দেন ১৪ রান। শেষ ওভারে প্রয়োজন হয় ৭ রান। সিঙ্গেল নিয়ে ১ বল হাতে রেখে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে সিলভারউডের শিষ্যরা।

    টস জিতে স্বাভাবিকভাবেই ফিল্ডিং নেন দাসুন শানাকা। ব্যাটিং করতে নেমে ভারতের শুরুটা ছিল বিদঘুটে। লোকেশ রাহুলের (৬) আউটের ধাক্কা সামলে ওঠার আগেই শূন্যরানে বোল্ড বিরাট কোহলি। মাদুশঙ্কর লেন্থ বলে স্লগ করতে গিয়ে স্ট্যাম্প উড়ে যায় বিশ্বের সেরা এই ব্যাটসম্যানের।

    ধাক্কা কাটিয়ে খেলার হাল ধরেন রোহিত শর্মা-সূর্যকুমার যাদব। এক প্রান্তে রোহিত বিস্ফোরক ব্যাটিং করে যান আরেক প্রান্তে অ্যাংকর রোল প্লে করেন দ্য স্কাই। দুজনের জুটি থেকে আসে ৫৮ বলে ৯৭ রান। যাতে রোহিতের অবদানই ৩৬ বলে ৬৮ রান। ৪১ বলে ৫ চার ৪ ছক্কায় ৭২ রান করেন রোহিত। তবুও সূর্যকুমার মাঠে থাকায় আশা ছাড়েননি ভারতীয়রা। তবে আকাশে বল ওড়াতে পারেননি আজ তিনি। ১টি করে চার ছয়ে ২৯ বলে ৩৪ রান করেন তিনি।

    এ দুই ব্যাটসম্যান ছাড়া আর কেউ ২০ রান এর ঘরে যেতে পারেননি। ব্যাট হাতে ফ্লপ হার্দিক পান্ডিয়া-েঋষভ পন্থ। দুজনে আউট হন সমান ১৭ রান করে। প্রেস বক্সে ভারতীয় সংবাদকর্মীরা যারপরনার বিরক্ত পন্থের উপর। দীনেশ কার্তিকের মতো বিস্ফোরক ব্যাটসম্যান থাকতে পন্থ একাদশে কেন? প্রশ্ন তাদের। শেষ দিকে অশ্বিনের ৭ বলে ১৫ রানে স্কোর ১৭৩ হয়। ৮ উইকেট হারিয়ে তারা এই রান করে। দিলশান মাদুশঙ্ক সর্বোচ্চ ৩ উইকেট নেন। এ ছাড়া ২ উইকেট নেন চামিকা করুনারত্নে।

    আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
    আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে পাশে থাকুন

    Latest Posts

    spot_imgspot_img

    আলোচিত খবর