৩০শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
১৩ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
৭ই জিলহজ, ১৪৪৫ হিজরি

    সর্বশেষ খবর

     নতুন নিয়মে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ক্লাস চলবে

    নতুন নিয়মে প্রাথমিক বিদ্যালয়েরে ক্লাস চলবে।  প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের পরিচালক (পলিসি অ্যান্ড অপারেশন) মনীষ চাকমার সই করা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে সরাসরি শ্রেণি কার্যক্রম পরিচালনাসংক্রান্ত ৮ দফা নির্দেশনা থেকে এ তথ্য জানা গেছে। সোমবার এই নির্দেশনা জারি করা হয়।

    নির্দেশনাগুলো হলো:

    ১. এক শিফটবিশিষ্ট বিদ্যালয়গুলোতে শনি থেকে বুধবার সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৩টা ১৫ মিনিট পর্যন্ত, বৃহস্পতিবার বিকেল ২টা ২৫ মিনিট পর্যন্ত (প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণি সকাল ৯টা ৩০ মিনিট থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত এবং তৃতীয়, চতুর্থ ও পঞ্চম শ্রেণি সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৩টা ১৫ মিনিট পর্যন্ত শ্রেণি পাঠদান কার্যক্রম চলবে।

    ২. দুই শিফটের বিদ্যালয়গুলো শনি থেকে বুধবার সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত, বৃহস্পতিবার বেলা ২টা ৩০ মিনিট পর্যন্ত (প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণি: সকাল ৯টা থেকে বেলা ১১টা ৫০ মিনিট পর্যন্ত এবং তৃতীয়, চতুর্থ ও পঞ্চম শ্রেণি বেলা ১১টা ৩০ মিনিট থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত) শ্রেণি পাঠদান কার্যক্রম চলমান থাকবে।

    ৩. এক শিফটবিশিষ্ট বিদ্যালয়গুলোতে প্রাক-প্রাথমিক শ্রেণি কার্যক্রম শনি থেকে বৃহস্পতিবার সকাল ৯টা ৩০ মিনিট থেকে দুপুর ১২টা এবং দুই শিফটবিশিষ্ট বিদ্যালয়ে সকাল ৯টা থেকে বেলা ১১টা ৩০ মিনিট পর্যন্ত চলবে।

    ৪. এক শিফটবিশিষ্ট বিদ্যালয়গুলোতে দৈনিক সমাবেশ সকাল ৯ থেকে ৯টা ২৫ মিনিট পর্যন্ত এবং দুই শিফটবিশিষ্ট বিদ্যালয়ে দৈনিক সমাবেশ বেলা ১১টা ৩০ মিনিট থেকে ১১টা ৫০ মিনিট পর্যন্ত স্বাস্থ্যবিধি মেনে পরিচালনা করতে হবে।৫. প্রধান শিক্ষক বিষয়ভিত্তিক প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত শিক্ষকদের অগ্রাধিকার দিয়ে রুটিন করে সংশ্লিষ্ট ক্লাস্টারের সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসারের অনুমোদন নেবেন।

    ৬. ঢাকা মহানগরীতে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাঠদানের সময়সূচির ক্ষেত্রে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ২০১৯ সালের ২৯ জানুয়ারির পরিপত্র অনুসরণ করবেন।

    ৭. শিখন ঘাটতি পূরণে যথাযথ পদক্ষেপ নিতে হবে।

    ৮. এ নির্দেশনা পরবর্তী আদেশ না দেয়া পর্যন্ত চলবে।

    ২০২০ সালের মার্চে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের পর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ করা হয় দুই দফায়। প্রথম দফায় প্রায় দেড় বছর বন্ধ থাকার পর গত বছরের ১২ সেপ্টেম্বর থেকে ধীরে ধীরে খুলতে শুরু করে শিক্ষাঙ্গনের বন্ধ দুয়ার।

    সশরীরে ক্লাস প্রথম চালু হয় মাধ্যমিক স্কুলে। এরপর কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে। সবার পর সশরীরে ক্লাস শুরু হয় প্রাথমিকে।

    করোনার তৃতীয় ঢেউয়ে দ্বিতীয় দফায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে সশরীরে ক্লাস বন্ধ করে দেয়া হয় গত ২১ জানুয়ারি। এ দফায় শিক্ষাঙ্গনে সশরীরে ক্লাস বন্ধ থাকে এক মাস।

    ২২ ফেব্রুয়ারি ষষ্ঠ থেকে শুরু করে বিশ্ববিদ্যালয় আবার প্রাণচঞ্চল হয়ে ওঠে। গত ২ মার্চ থেকে আবার শুরু হয় প্রাথমিকে সশরীরে ক্লাস। আর করোনাভাইরাস সংক্রমণের কারণে টানা দুই বছর বন্ধ থাকার পর প্রাক-প্রাথমিকে ক্লাস শুরু হয় ১৫ মার্চ।

    আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
    আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে পাশে থাকুন

    Latest Posts

    spot_imgspot_img

    আলোচিত খবর