১৪ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
২৮শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
২৭শে শাওয়াল, ১৪৪৩ হিজরি

    সর্বশেষ খবর

    পাহাড়ি ঢলে কিশোরগঞ্জের হাওরে ধানের ক্ষতির আশঙ্কা

    পাহাড়ি ঢলে কিশোরগঞ্জের হাওরে বোরো ধানের ব‌্যাপক ক্ষতির আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। শনিবার (২ এপ্রিল) সকাল থেকে উজান থেকে নামা পানিতে ডুবতে শুরু করেছে ইটনা উপজেলার বিভিন্ন চরাঞ্চল। পানিতে তলিয়ে গেছে কাঁচা-পাকা বোরো ধান। এমন অবস্থায় কৃষক দিশেহারা হয়ে পড়েছে। পানিতে ডুবে তারা ধান কাটতে শুরু করেছে।

    রোববার (৩ এপ্রিল) বেলা সাড়ে ১২টার এ সব তথ‌্য নিশ্চিত করেছেন জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মো. ছাইফুল আলম। তিনি জানান, ভারতের আসামের চেরাপুঞ্জিতে অতিরিক্ত বৃষ্টি কারণে সেখানকার পানি হাওরে ঢুকতে শুরু করেছে। নদীর পানি বেড়ে যাওয়ায় সুনামগঞ্জ হয়ে প্রবল বেগে পানি ঢুকছে ইটনা উপজেলার হাওরে।

    উপ-পরিচালক মো. ছাইফুল আলম আরও জানান, ইটনার ধনু নদীর পানি বাড়তে শুরু করেছে। এতে উপজেলার চর এলাকার নিচু জমি তলিয়ে বিস্তীর্ণ এলাকার ফসল নষ্ট হচ্ছে। ফসলরক্ষা বাঁধ মেরামতের জন্য মসজিদে মাইকে ঘোষণা দেওয়া হচ্ছে। তবে ঠিক কী পরিমাণ ফসলের ক্ষতি হতে পারে, সেটি সরেজমিন পরিদর্শন শেষে বলা যাবে।

    ইটনা উপজেলার কৃষক রমিজ উদ্দিন জানান, পানি উন্নয়ন বোর্ডের ফসল রক্ষা বাঁধ সঠিক সময়ের মধ‌্যে মেরামত না হওয়ায় পাহাড়ি ঢলের পানি সহজে ফসলি ক্ষেতে ঢুকে পড়ছে। এতে নিচু জমির অনেক ফসলের ক্ষতি হচ্ছে। তারা পানি উন্নয়ন বোর্ডের কাছে দ্রুত ক্ষতিগ্রস্ত বাঁধ মেরামতের দাবি জানান।

    কিশোরগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. মতিউর রহমান জানান, বিস্তীর্ণ হাওর এলাকার প্রায় ৬০ কিলোমিটার দীর্ঘ ১২টি বড় ফসল রক্ষা বাঁধ প্রকল্প এখনও শেষ করা সম্ভব হয়নি। কারণ এসব জায়গায় ভূমি অধিগ্রহণ কাজ বাকি রয়েছে। তবে ওইসব জায়গায় কাজ চলমান রয়েছে। এ ছাড়া হাওরের ৭৩টি ফসল রক্ষা বাঁধ সংস্কার করা হয়েছে।

    আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
    আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে পাশে থাকুন

    Latest Posts

    spot_imgspot_img

    আলোচিত খবর