১৪ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
২৮শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
২৭শে শাওয়াল, ১৪৪৩ হিজরি

    সর্বশেষ খবর

    মিরাজের ব্যাটিংয়ে আস্থা রয়েছে রাসেল ডোমিঙ্গোর

    ‘বর্তমানে মিরাজের ব্যাটিংয়ের ওপর অনেক আস্থা রয়েছে বলে মন্তব্য করেছে জাতীয় ক্রিকেট দলের হেড কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো। আজ বৃহস্পতিবার চট্টগ্রামে সাংবাদিকদের সঙ্গে আরো বলেন, মিরাজের টেস্ট সেঞ্চুরি আছে। নিউজিল্যান্ড সফর এবং বিপিএলেও ভালো ব্যাট করেছে। এটা বিশ্বাস করা কঠিন, তবে তখনও আমার বিশ্বাস ছিল যে জিততে পারবো। কারণ উইকেট ভালো ছিল, রানরেটও আমাদের হাতে ছিল।’

    ওয়ানডে সিরিজে লিড নেওয়ার পর আজ (বৃহস্পতিবার) ছিল বাংলাদেশের ঐচ্ছিক অনুশীলন। রুদ্ধশ্বাস ম্যাচ খেলার পর আজ বিশ্রামেই ছিলেন আফিফ-মিরাজসহ সাকিব আল হাসান, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদরা। তবে অনুশীলন করেছেন তামিম ইকবাল, মুশফিকুর রহিম, ইয়াসির রাব্বিসহ স্কোয়াডের ৭ ক্রিকেটার।

    অনুশীলনের ফাঁকে সংবাদ মাধ্যমে কথা বলেন ডোমিঙ্গো। প্রথম ম্যাচ সম্পর্কে জিজ্ঞেস করা হলে তিনি বলেন, ‘এখন বললে হয়তো বিশ্বাস করবেন না, কিন্তু মিরাজ যখন ব্যাট করতে যায় তখন আমি শ্রিকে (শ্রিনিবাস চন্দ্রশেখরন, বাংলাদেশ দলের অ্যানালিস্ট) বলছিলাম যে, ওরা দুজন ১৫০ রানের জুটি গড়বে। এরপর তাসকিন-শরিফুলের সামনে ১৫ রান থাকবে।’

    ৯৩ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলা আফিফ হোসেন ধ্রুব ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে বলেছিলেন, জেতার আগ পর্যন্ত জয়ের কথা ভাবেননি তারা দুজন। তবে ড্রেসিংরুমে হেড কোচ ডোমিঙ্গোর ভাবনা ছিল ভিন্ন। লক্ষ্যমাত্রা ৬০ রানে নেমে আশার পরই জয়ের ব্যাপারে বিশ্বাসী হয়ে ওঠেন টাইগারদের হেড কোচ।

    ডোমিঙ্গোর ভাষ্য, ‘যখন দেখলাম আমাদের লক্ষ্য ৬০ রানের নিচে নেমে এসেছে, তখনই ভাবলাম আমাদের এখন ভালো সুযোগ আছে। কারণ মোমেন্টাম আমাদের সঙ্গে ছিল। একটা পর্যায়ে তাদের (আফগানিস্তান) বোলিং অপশনও কমে আসছিল। উইকেট সত্যিই ব্যাটিংয়ের জন্য ভালো ছিল।’

    বুধবার ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচে অবিশ্বাস্য কীর্তি গড়ে বাংলাদেশকে স্মরণীয় জয় এনে দিয়েছেন আফিফ হোসেন ধ্রুব ও মেহেদি হাসান মিরাজ। মাত্র ৪৫ রানে ৬ উইকেট পড়ার পর ১৭৪ রানের রেকর্ড জুটি গড়ে ৪ উইকেটে দলকে জিতিয়েছেন এ দুই তরুণ। দুজনই গড়েছেন এক ঝাঁক রেকর্ড।

    ম্যাচ শেষে অধিনায়ক তামিম ইকবাল সোজাসাপ্টাই বলেছেন, ৪৫ রানে ৬ উইকেট পড়ার পর আর ম্যাচ জিততে পারবো ভাবিনি আমি।

    তবে অধিনায়ক না ভাবলেও, হেড কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো ঠিকই জানতেন যে, বড় জুটি গড়বেন আফিফ ও মিরাজ। এরপরও কিছু বাকি থাকলে তা করে ফেলবেন তাসকিন আহমেদ ও শরিফুল ইসলাম।

    ম্যাচে বাংলাদেশের ইনিংসের ৩০ ওভার শেষে হুট করেই ফ্লাডলাইট বিভ্রাটের কারণে প্রায় ১৫ মিনিট বন্ধ ছিল খেলা। তখনও জয়ের জন্য ৮৬ রান প্রয়োজন ছিল বাংলাদেশের। সেই মুহূর্তে খানিক চিন্তায় পড়েছিলেন ডোমিঙ্গো। তবে আফিফ ও মিরাজ যেভাবে পরিপক্ক ব্যাটিং করেছে, তা সব চিন্তা দূর করেছে।

    ডোমিঙ্গো বলেন, ‘সত্যি বলতে ফ্লাডলাইটের কারণে আসা বিরতিটি আমাকে নার্ভাস করে তুলেছিল। কারণ সেই বিরতির আগে ২-৩ ওভার ভালো যাচ্ছিল আমাদের। আবার খেলা শুরু হওয়ার আফিফও খানিক ছন্দ হারায়। তবে এরপর দারুণ পরিপক্কতা দেখিয়ে সেই ধাপটা উৎড়ে গেছে।’

    আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
    আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে পাশে থাকুন

    Latest Posts

    spot_imgspot_img

    আলোচিত খবর