ক্রিকেটস্পোর্টস

দেশের মাটিতে সর্বনিম্ন রান, ফলোঅনে পড়ে ব্যাটিং

ফলোঅন এড়াতে ২৫ রান প্রয়োজন ছিল বাংলাদেশের। হাতে উইকেট ছিল ৩টি। রৌদ্রোজ্জ্বল সকালে পাকিস্তানের বোলাররা বাংলাদেশের জন্য কাজটা কঠিন করে তোলে। পাকিস্তান ৪ উইকেটে ৩০০ রানে ইনিংস ঘোষণা করে। বাংলাদেশের ফলোঅন এড়াতে দরকার ছিল ১০১ রান। চতুর্থ দিন ৭ উইকেটে ৭৬ রান তুলে দিন শেষ করে বাংলাদেশ। আজ ১১ রান যোগ করতেই শেষ ৩ উইকেট। বাংলাদেশ অলআউট ৮৭ রানে।

ঢাকা টেস্টে ফলোঅনের শঙ্কায় বাংলাদেশ। বুধবার পঞ্চম দিনে বাংলাদেশকে প্রথম ইনিংসে ফলোঅন এড়াতে করতে হবে আরো ২৫ রান। পাকিস্তান ৪ উইকেটে ৩০০ রানে ইনিংস ঘোষণা করে। মাত্র ২৬ ওভারের খেলায় ৭ উইকেট হারিয়ে বাংলাদেশের রান ৭৬। ৭০ মিনিটে চূর্ণ বিচূর্ণ বাংলাদেশের টপ ও মিডল অর্ডার।

শুধু ফলোঅন কেন, বৃষ্টিবিঘ্নিত টেস্টটি এখন হাতছাড়ার শঙ্কায় বাংলাদেশ। ২২৪ রানে এখনও পিছিয়ে স্বাগতিকরা। পাকিস্তানের বোলাররা যেভাবে দাপট দেখাচ্ছে তাতে তাদের পাল্লাই ভারি। মাহমুদুল হাসান জয়, সাদমান ইসলাম, মুমিনুল হক, মুশফিকুর রহিম, লিটন দাস, নাজমুল হোসেন শান্তরা যেভাবে নিজেদের উইকেট আত্মাহুতি দিয়েছেন তাতে তাদের নিবেদন নিয়ে বিরাট প্রশ্ন উঠেছে। দেখার বিষয় বৃষ্টি বিঘ্নিত ম্যাচে শেষের ফলাফল কি হয় হার নাকি ড্র।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button