জাতীয়সারাদেশ

নিত্যপণ্যের দাম বাড়ায়, কষ্টে আছে খেটে-খাওয়া মানুষগুলো

নিত্যপণ্যের দামের লাগাম কোন ভাবেই টেনে ধরা যাচ্ছে না দাম বেড়েই চলেছে। শীতের সবজি সীমিত আকারে বাজারে আসলেও দাম চড়া। এতে হাঁপিয়ে উঠছেন খেটে-খাওয়া মানুষ। মধ্যবিত্তরাও কুলিয়ে উঠতে পারছেন না।

বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখা যায় সবকিছুরই বাজার চড়া। চাল, ডাল, মাছ, মাংস, তেল, তরিতরকারি, ফলমূল, চিনিসহ প্রতিটি দ্রব্যের দাম আগের তুলনায় বেড়েছে। ফলে সাধারণ মানুষ, বিশেষ করে খেটে খাওয়া মেহনতি মানুষের নাভিশ্বাস উঠেছে।

সব মিলিয়ে কাঁচাবাজারের লাগামহীন দামে নিম্ন আর মধ্যম আয়ের মানুষ কষ্টে আছে। সবজি কেনা এখন দুরূহ ব্যাপার। আলু আর ডিমের ওপরই ভরসা খেটে-খাওয়া পরিবারগুলোর। বাজারে শীতকালীন সবধরনের সবজি পাওয়া গেলেও কিনবার সাধ্য নেই অনেকের।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণের ক্রান্তিকালে মানুষ যখন চাকরি-বাকরি হারিয়ে কোনোরকমে বেঁচে থাকার চেষ্টা করছে, ঠিক তখন চাল তেল সবজি পেঁয়াজসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম বেড়েই চলেছে।

বাজার ঘুরে দেখা যায়, একাধিক সবজি ১০০ টাকার উপরে বিক্রি হচ্ছে। শিম বিক্রি হচ্ছে ৮৫ থেকে ৯০ টাকা। বরবটি ৬০ টাকা, বেগুন ৭০-৮০ টাকা, মিষ্টি কুমড়া ৬০-৭০ টাকা, লাউ বিক্রি হচ্ছে আকারভেদে ৫০-৬০ টাকা। সয়াবিন তেল বিক্রি হচ্ছে ১৭০ টাকা, চিনি ৯০ টাকা। বয়লার মুরগী প্রতি কেজি ১৮০ টাকা।

একাধিক সবজি বিক্রেতা জানান, সবজির দাম বাড়লে বেচাকেনা অনেক কম হয়। দাম বাড়ার সঙ্গে আমাদের কোন সম্পর্ক নেই। আমাদের কেনা বেশি তাই বিক্রিও বেশি। দাম বেশি হওয়ায় ক্রেতার সংখ্যা অনেক কম। তবে যেহেতু শীত সিজন এসে যাচ্ছে, আশা করছি দ্রুতই দাম কমে আসবে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button