সেপ্টেম্বর ২৯, ২০২০ ১০:৪৮ অপরাহ্ণ ||১৪ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ||১১ই সফর, ১৪৪২ হিজরী
ছবি সংগৃহীত

মান সম্মানটা রাইখেন পাপিয়ার ডেরায় যাতায়াতকারীদের আকুতী

আলোচিত ডেস্ক:

যুব মহিলা লীগের বহিষ্কৃত নেত্রী শামীমা নুর পাপিয়া ওরফে পিউয়ের অপকর্মের সঙ্গী ছিলেন বা ছিলেন না, এমন অনেক প্রভাবশালী তদবির নিয়ে মাঠে নেমে পড়েছেন। তারা আতঙ্কে গোয়েন্দা কর্মকর্তাদের কাছে ফোন করে আত্মপক্ষ সমর্থন করছেন। এই তালিকায় রয়েছেন ধনী ব্যবসায়ী, সচিব পর্যায়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও প্রভাবশালী রাজনৈতিক নেতাসহ বিভিন্ন শ্রেণির লোকজন।

এ বিষয়ে সরকারের একটি বিশেষ সংস্থার কর্মকর্তারা জানান, পাপিয়ার ডেরায় যাতায়াতকারী তার ঘনিষ্ঠ দুর্নীতিবাজ, অবৈধ অর্থের মালিকরা এখন দৌড়ঝাপ শুরু করেছেন। এ ঘটনায় হওয়া মামলার তদন্তের দিকেও খোঁজ রাখছেন তারা।

‘আমার সঙ্গে পাপিয়ার কখনো দেখাই হয়নি। কিন্তু তদন্তে নাম আসছে আপনার। কী বলেন, এটা সত্য নয়। মান-সম্মানটা রাইখেন। আমি অনৈতিক কাজের সঙ্গে জড়িত নই।’ এভাবেই অনেকে আত্মপক্ষ সমর্থন করছেন।

এক গোয়েন্দা কর্মকর্তা বলেন, পাপিয়াকাণ্ডে প্রায় প্রত্যেক দিনই গোয়েন্দা কর্মকর্তাদের ফোন করছেন রাজধানীর গুলশানের হোটেল ওয়েস্টিনে নিয়মিত যাতায়াতকারী অনেক প্রভাবশালী লোকজন। এ ঘটনায় তাদের না জড়াতে অনেকেই অনুরোধ করছেন।

পুলিশ সদর দপ্তরের সহকারী মহাপরিদর্শক (এআইজি-মিডিয়া অ্যান্ড পিআর) মো. সোহেল রানা বলেন, এ ঘটনাটি অত্যন্ত গুরুত্ব দিয়ে তদন্ত চলছে। পাপিয়ার অপকর্মের সঙ্গে যাদের সংশ্লিষ্টতা রয়েছে তাদেরও বিবেচনায় নেওয়া হচ্ছে।

গত ২২ ফেব্রুয়ারি রাজধানীর শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর হয়ে দেশত্যাগের সময় পাপিয়াসহ চারজনকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব। গ্রেপ্তারের পর শেরে বাংলা নগর থানায় দুটি এবং বিমানবন্দর থানায় একটি মামলা করা হয়।

পৃথক তিন মামলায় পাপিয়া ও তার স্বামী মফিজুর রহমান ১৫ দিনের রিমান্ডে রয়েছেন। রিমান্ডে পাপিয়া তার বিভিন্ন অপকর্মের বিষয়ে অবাক করার মতো নতুন নতুন তথ্য দিচ্ছেন। এছাড়াও তাদের সহযোগী সাব্বির খন্দকার ও শেখ তায়্যিবাকে ৫ দিনের রিমান্ডে নেওয়া হয়। ৫ দিনের রিমান্ড শেষে এ দুইজনকে ফের ৫ দিনের রিমান্ড দেন আদালত।

About Md Uzzal