সেপ্টেম্বর ২৬, ২০২০ ৭:৩৯ পূর্বাহ্ণ ||১১ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ||৮ই সফর, ১৪৪২ হিজরী

রেজিস্ট্রেশন ছাড়া হলে থাকতে পারবে না শিক্ষার্থীরা: শাবি উপাচার্য

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন আবাসিক হলের উন্নয়নে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ আন্তরিক বলে জানিয়েছেন উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ। তিনি বলেন, হলগুলোর উন্নয়নে ভালো আইডিয়া আসলে তা বাস্তবায়নে সহায়তা করা হবে। তবে সুশৃঙ্খল অবস্থা ও উন্নয়নের ধারবাহিকতা রক্ষায় শিক্ষার্থীদের রেজিস্ট্রেশন করে আবাসিক হলে থাকতে হবে। রেজিস্ট্রেশন করা ছাড়া কোনও শিক্ষার্থী আবাসিক হলে থাকতে পারবে না।

সোমবার (২০ জানুয়ারি) দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের শাহপরান হল ডাইনিং সংস্কারের পর উদ্বোধনের সময় তিনি এ কথা বলেন।

উপাচার্য বলেন, ‘শুধুমাত্র যারা রেজিস্ট্রেশন করবে তারাই আবাসিক হলে থাকতে পারবে। অন্যথায় হলে কেউ থাকতে পারবে না। আমরা চাই বিশ্ববিদ্যালয়ের সুশৃঙ্খল অবস্থা বজায় থাকুক।’

এসময় আাবসিক ছাত্রদের সবাইকে রেজিস্ট্রেশন করার আহ্বান জানান উপাচার্য।

উপাচার্য আরও বলেন, ‘আগামী ৩-৪ বছরের মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হলে ৮০ শতাংশ শিক্ষার্থীর আবাসন সুবিধা নিশ্চিত করা হবে। পাশাপাশি বিশ্ববিদ্যালয়ের চলমান প্রকল্প বাস্তবায়ন হলে অবকাঠামোগত সার্বিক সমস্যার সমাধান হবে। আমরা চাই শুধু বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির দিক দিয়ে নয় বরং সব দিক দিয়ে শাবি হবে দেশ সেরা বিশ্ববিদ্যালয়।’

শাহপরান হলের উন্নয়নে গৃহীত বিভিন্ন পদক্ষেপ ও পরিবর্তন দেখে উপাচার্য সন্তোষ প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, শাহপরাণ হলের উন্ননয়নে অনেক উল্লেখযোগ্য পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। এজন্য হল প্রভোস্টকে ধন্যবাদ জানাই। ভালোর জন্য আইডিয়া আসলে তা বাস্তবায়ন করা হবে।

অন্য আবাসিক হলগুলোতে পরিবর্তন ও উন্নয়নের উদ্যোগ নিলে সর্বোচ্চ সহযোগিতা দেওয়ার আশ্বাস দেন উপাচার্য।

এসময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মো. আনোয়ারুল ইসলাম, ছাত্র উপদেশ ও নির্দেশনা পরিচালক অধ্যাপক ড. মো. রাশেদ তালুকদার, শাহপরাণ হলের প্রভোস্ট অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ মিজানুর রহমান খানসহ বিভিন্ন দফতরের প্রধান, সহকারী প্রক্টর, শাহপরান হলের সহকারী প্রভোস্ট, কর্মকর্তা-কর্মচারী ও আবাসিক শিক্ষার্থীরা।

 

About Md Uzzal