আগস্ট ৮, ২০২০ ৯:২৫ অপরাহ্ণ ||২৪শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ||১৭ই জিলহজ্জ, ১৪৪১ হিজরী

মাশরাফি অধিনায়ক থেকে অবসার নিলেন

আলোচিত খবর ডেস্ক:

বাংলাদেশ ওয়ানডে অধিনায়কের দায়িত্ব থেকে স্বেচ্ছায় নিজেকে সরিয়ে নিলেন মাশরাফি বিন মর্তুজা। বৃহস্পতিবার (৫ মার্চ) সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে সংবাদ সম্মেলনে আনুষ্ঠানিকভাবে অধিনায়কত্ব ছাড়লেন মাশরাফি। দলনেতার দায়িত্ব ছাড়লেও খেলা চালিয়ে যাবেন তিনি।

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের শেষ ম্যাচে আগামীকাল মাঠে নামবে বাংলাদেশ। ম্যাচের আগে সংবাদ সম্মেলনে মাশরাফি নিজেই দায়িত্ব থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দেন। আগামীতে আরও ভালো কিছুর প্রত্যাশাও করেছেন নড়াইল এক্সপ্রেস খ্যাত মাশরাফি।

সংবাদ সম্মেলনে এসে মাশরাফি নিজের অধিনায়ক হিসেবে শেষ ম্যাচ ঘোষণা করার সময়ই খোলাসা করে দিয়েছেন, সিদ্ধান্ত নেয়ার আগে তিনি কথা বলেছেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের সঙ্গে। বিসিবি সভাপতির সঙ্গে কথা বলেই তিনি প্রেস কনফারেন্স রুমে প্রবেশ করেন।

প্রেস কনফারেন্স রুমে প্রবেশ করার আগে মাশরাফিকে দেখা গেল উইকেটের মাঝে দাঁড়িয়ে অনেক্ষণ কোচ রাসেল ডোমিঙ্গোর সঙ্গে কথা বলছেন। প্রায় ৭-৮ মিনিট। সঙ্গত কারণেই ভাবা হচ্ছিল যে, কোচের সঙ্গে আলাপ করেই হয়তো অধিনায়কের পদ থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দিয়েছেন তিনি।

কিন্তু মাশরাফি পরিষ্কার জানিয়ে দিলেন, কোচের সঙ্গে অবসর কিংবা অধিনায়কত্ব নিয়ে কোনো আলোচনা হয়নি। তিনি বলেন, ‘আমি অবসরের সিদ্ধান্তটা হুট করেই নিয়েছি এবং সেটা বিসিবি সভাপতির সঙ্গে কথা বলে।’

কখন বিসিবি সভাপতির সঙ্গে কথা বলেছেন, সেটাও জানান মাশরাফি। তিনি বলেন, ‘টিম বাসে ওঠার আগে, হোটেল থেকে মুঠোফোনে আমি পাপন ভাইয়ের সঙ্গে কথা বলেছি। আমি মনে করি, যেহেতু অধিনায়কের দায়িত্বটা সব সময় বোর্ড নির্ধারণ করে এবং বোর্ডই আমাকে অধিনায়কের গুরু দায়িত্ব দিয়েছিল। তাই অধিনায়কের পদ থেকে সরে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্তটাও বোর্ড সভাপতির সঙ্গে আলাপ করেই নিয়েছি এবং তাকেই সবার আগে জানিয়েছি।’

সংবাদ সম্মেলন কক্ষে এসে চেয়ারে বসার পর প্রশ্নোত্তর পর্ব শুরুর আগেই মাশরাফি নিজ থেকে বলে ওঠেন, ‘সবাইকে ধন্যবাদ। আমি কিছু কথা বলতে চাই। অধিনায়ক হিসেবে কালকেই আমার শেষ ম্যাচ। এত লম্বা সময় আমার প্রতি আস্থা রাখার জন্য ধন্যবাদ জানাই বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডকে। ধন্যবাদ জানাই আমার সাথে যত খেলোয়াড় খেলেছে তাদের। আমি নিশ্চিত মাঝের সময়টা এত সহজ ছিল না, গত ৫-৬ বছরের যাত্রাটা। আমি ধন্যবাদ জানাই টিম ম্যানেজম্যান্টকে, যাদের অধীনে আমি খেলেছি। তারা সবাই আমাকে অনেক সহযোগিতা করেছে।’

অধিনায়কত্ব শুরুর সময়টার কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘আমার অধিনায়কত্ব শুরু হয়েছিল চন্ডিকা হাথুরুসিংহেকে দিয়ে। এর আগেও পেয়েছিলাম; কিন্তু ইনজুরির কারণে সেভাবে করতে পারিনি। হাথুরুসিংহেকে দিয়েই শুরু এরপর খালেদ মাহমুদ সুজন, স্টিভ রোডস আর (রাসেল) ডোমিঙ্গো…, নির্বাচক ও বোর্ডের কর্মকর্তা যারা আছেন, বোর্ডের প্রতিটি স্টাফ, সবাইকে ধন্যবাদ সহযোহিতার জন্য। মিডিয়ার যারা আছেন, সবাই সহযোগিতা করেছেন। আপনাদের ধন্যবাদ জানাই। সবশেষে সমর্থকরা, যারা বাংলাদেশ ক্রিকেটের প্রাণ। আপনাদের সমর্থন ছাড়া সম্ভব হতো না (এত দূর আসা)।’

এরপর সঙ্গে করে আনা লিখিত বক্তব্য পড়ে শোনান মাশরাফি, ‘আজকে আমি আনুষ্ঠানিকভাবে বাংলাদেশ ওয়ানডে দলের অধিনায়কত্ব থেকে সরে যাচ্ছি। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে শেষ ম্যাচটি অধিনায়ক হিসেবে আমার শেষ ম্যাচ। খেলোয়াড় হিসেবে আমি চেষ্টা করব আমার সেরাটা দেওয়ার, যদি সুযোগ আসে। শুভকামনা থাকবে পরবর্তী অধিনায়কের জন্য।’

About Md Uzzal