এপ্রিল ৩, ২০২০ ৫:৩৩ অপরাহ্ণ ||২০শে চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ||৯ই শাবান, ১৪৪১ হিজরী

ঈদের ছুটির পর সংসদের মুলতবি অধিবেশন শুরু, বাজেট পাস কাল

 

আজ বুধবার বিকেল ৪টায় ঈদের ছুটির পর স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংসদের মুলতবি অধিবেশন শুরু হয়েছে। শুরুতেই বাজেটের ওপর আলোচনা করেন জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। এরপর বক্তব্য রাখেন সংসদের বিরোধী দলীয় নেতা বেগম রওশন এরশাদ। বিরোধী দলের বক্তব্যের পর সংসদ নেতা ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার বক্তব্য শুরু করেন।
২০১৭-১৮ অর্থবছরের বাজেট পাস হতে পারে আগামীকাল বৃহস্পতিবার। এর আগে গেল ১ জুন ‘উন্নয়নের মহাসড়কে বাংলাদেশ, সময় এখন আমাদের’ শিরোনামে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত ২০১৭-১৮ অর্থবছরের জন্য ৪ লাখ ২৬৬ কোটি টাকার বাজেট জাতীয় সংসদে উপস্থাপন করেন। যা অর্থমন্ত্রী তার জীবনের সেরা বাজেট উপহার বলে ঘোষণা দিয়েছেন।
এ নিয়ে আবুল মাল আবদুল মুহিত টানা ৮ বার বাজেট ঘোষণা করলেন। তবে সব মিলিয়ে তিনি ১০ বার বাজেট উপস্থাপন করলেন। বাংলাদেশে এই প্রথম এত বড় অংকের বাজেট পেশ করলেন তিনি।
২০১৭-১৮ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে ঘাটতি ধরা হয়েছে ১লাখ ১২ হাজার কোটি টাকা। ঘাটতি মেটাতে অভ্যন্তরীণ উৎস থেকে ৬০ হাজার ৩৫২ কোটি টাকা ঋণ নেবে সরকার। এর মধ্যে ব্যাংক থেকে ২৮ হাজার ২০৩ কোটি, সঞ্চয়পত্র থেকে ৩০ হাজার ১৫০ কোটি এবং অন্যান্য খাত থেকে ১ হাজার ৯৯৯ কোটি টাকা।
বাজেটে রাজস্ব আয়ের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ২ লাখ ৮৭ হাজার ৯৯০ কোটি টাকা। এর মধ্যে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের মাধ্যমে কর হিসেবে আসবে ২ লাখ ৪৮ হাজার ১৯০ কোটি টাকা। জিডিপি প্রবৃদ্ধির লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ৭.৪ শতাংশ। মূল্যস্ফীতির হার ধরা হয়েছে ৫.৫ শতাংশ।
আসছে অর্থবছরে বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির(এডিপি)আকার ধরা হয়েছে ১ লাখ ৬৪ হাজার ৮৪ কোটি ৪৩ লাখ টাকা।
প্রস্তাবিত বাজেটে ১৫ শতাংশ হারে মূল্য সংযোজন কর(মূসক) বা ভ্যাট হার রাখার প্রস্তাব করা হয়। এ হার আগামী ৩ বছর অপরিবর্তিত থাকবে। ভ্যাট অব্যাহতির সীমা ৩০ লাখ টাকার পরিবর্তে ৩৬ লাখ টাকা করার প্রস্তাব করা হয়।
যাতে মৌলিক খাদ্যপণ্য, জীবন রক্ষাকারী ওষুধ, গণপরিবহন, চিকিৎসা ও শিক্ষা, কৃষি, মৎস্যসহ বিভিন্ন নিত্যপ্রয়োজনীয় খাতের এক হাজার ৮শ’ ৭৪টি পণ্য ও সেবায় ভ্যাট অব্যাহতি থাকছে।
এছাড়া টার্নওভার করের সীমা ৮০ লাখ টাকা থেকে বাড়িয়ে দেড় কোটি টাকা করা হচ্ছে। ‘এইচএস কোড’ ভুক্ত ৫১ হাজার ৪৩টি পণ্য ও সেবাকে ভ্যাট অব্যাহতি দেয়ার প্রস্তাব করা হয়। আসছে ১ জুলাই থেকে এ আইন কার্যকর হবার কথা।
এক লাখ টাকার ওপরে ব্যাংক একাউন্টের জন্য আবগারি শুল্কের(এক প্রকার পরোক্ষ কর যা দেশজ উৎপাদনের ওপর আদায় করা হয়ে থাকে)হার বাড়ছে ৩০০ টাকা। যা আগে ছিল ৫০০ টাকা। ফলে বাজেট প্রস্তাবণায় এক লাখ টাকার ঊর্ধ্বের আবগারি শুল্কের পরিমাণ দাঁড়াচ্ছে ৮০০ টাকা।
কিন্তু প্রস্তাবিত বাজেট নিয়ে সংসদ সদস্য, অর্থনীতিবিদ ও সাধারণ মানুষ এ হার নিয়ে বেশ সমালোচনা করেন। তবে এ হার বাজেটে পাস হওয়ার সময় কমতে পারে বলে অনেকেই ধারণা করছেন।
বাজেট প্রস্তাবকালে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতে বরাদ্দ গেল অর্থবছরের তুলনায় ৬ হাজার ৮১ কোটি টাকা বাড়িয়ে ২১ হাজার ৯১৮ কোটি টাকা করার প্রস্তাব করা হয়।
প্রস্তাবিত বাজেটে বেশ কিছু পণ্যের দাম কমতে পারে। খাতভিত্তিক প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে রয়েছে বিভিন্ন ধরনের খাদ্য, ওষুধ, মেডিক্যাল সামগ্রী, পণ্য পরিবহন, চিকিৎসা উপকরণ, শিক্ষা উপকরণ ও কৃষি উপকরণ ইত্যাদি। তবে দাম বাড়তে পারে বিলাসী সামগ্রীতে।
ব্যক্তি শ্রেণির করদাতাদের করমুক্ত আয়ের সীমা প্রস্তাবিত বাজেটে অপরিবর্তিত থাকছে। অর্থাৎ ব্যক্তিগত আয় আড়াই লাখ টাকা পর্যন্ত কর থেকে মুক্ত থাকছে। এর বেশি হলেই তাকে কর দিতে হবে। ২০১৬-১৭ অর্থবছরেও করমুক্ত আয়ের সীমা আড়াই লাখ টাকা ছিল।

About uzzal uzzal